১৬ই অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার, ৩১শে আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৯ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরি

শিরোনামঃ-
  • হোম
  • রাজনীতি
  • ‘আইনমন্ত্রীর বক্তব্যেই প্রমাণিত বিচার বিভাগ সরকার প্রভাবিত’

‘আইনমন্ত্রীর বক্তব্যেই প্রমাণিত বিচার বিভাগ সরকার প্রভাবিত’

Khorshed Alam Chowdhury

আপডেট টাইম : জুলাই ২৫ ২০১৬, ০১:৫৮ | 660 বার পঠিত

17_19_2ঢাকা: ‘তারেক রহমান বিচারককে প্রভাবিত করে নিম্ন আদালতে খালাস পেয়েছিলেন’ আইনমন্ত্রীর এমন বক্তব্যই প্রমাণ করে বিচার বিভাগ সরকার কর্তৃক প্রভাবিত বলে দাবি করেছেন বিএনপিপন্থি আইনজীবীরা।
রোববার সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির শফিউর রহমান মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে একথা বলেন বিএনপিপন্থি আইনজীবীরা।
বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক তারেক রহমানের বিরুদ্ধে সকল ‘মিথ্যা মামলা’ প্রত্যাহার দাবিতে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।
এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ফোরামের সাধারণ সম্পাদক ও সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদক ব্যারিস্টার এ এম মাহবুব উদ্দিন খোকন। পরে মাহবুব উদ্দিন খোকন ছাড়াও সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন ও অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন সুপ্রিম কোর্ট বারের সাবেক সম্পাদক ব্যারিস্টার বদরুদ্দোজা বাদল, অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার, ওয়ালিউর রহমান, ব্যারিস্টার কায়সার কামাল প্রমুখ।
অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন বলেন, ‘বাংলাদেশের বিচারব্যবস্থা সরকার কর্তৃক প্রভাবিত হয়। সরকার প্রভাবিত না করলে বিচার নিরপেক্ষ হয়।’ তিনি প্রশ্ন রাখেন ‘বিচার বিভাগ স্বাধীন হলে হস্তক্ষেপ কিভাবে হয়। সুতরাং আইনমন্ত্রীর এই বক্তব্যেই প্রমাণিত হয় বিচার বিভাগ সরকার কর্তৃক প্রভাবিত হয়। এই প্রভাব শুধু নিম্ন আদালত নয় উচ্চ আদালতেও হয়।’
তারেক রহমান আপিল করবেন কিনা জানতে চাইলে জয়নুল আবেদীন বলেন, ‘তারেক জিয়া যথাসময়ে আপিল করবেন। বাংলাদেশে ১৭ বছর পরও আপিল করার নজির আছে। সেই আপিল আদালত গ্রহণও করেছেন।’
ব্যারিস্টার এ এম মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেন, ‘এই মামলায় বর্তমান আইনমন্ত্রী দুদকের পক্ষে এই মামলা পরিচালনা করেছেন। তিনি আইনমন্ত্রী হওয়ার পর বিচারক, পিপি সব নিয়োগ করেছেন। রায় তাদের পক্ষে গেলে নিরপেক্ষ আর বিপক্ষে গেলে প্রভাবিত। যখন আইনমন্ত্রী বলেন বিচারক প্রভাবিত হয় তখন বিচার ব্যবস্থার করুণ অবস্থা অনুনেয়।’
লিখিত বক্তব্যে মাহবুব উদ্দিন খোকন আরও বলেন, ‘তারেক রহমানের বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল তিনি জনৈক গিয়াস উদ্দিন আল মামুনের অ্যাকাউন্ট থেকে একটি সাপ্লিমেন্টারি ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে বিভিন্ন সময়ে সর্বমোট ৫২ হাজার ইউএস ডলার (বাংলাদেশি টাকায় যা ৩৮ থেকে ৪০ লাখ টাকা) খরচ করেছিলেন। দুদকের সাক্ষী খাদিজা ইসলাম একটি পাওয়ার প্রজেক্টের মাধ্যমে কাজের জন্য মামুনকে ঘুষ দিয়েছেন। যদিও তারেক রহমান ওই খরচকৃত টাকা তিনি বাৎসরিক ট্যাক্স ফাইলে প্রদর্শন করেছিলেন।’
এই বক্তব্যের প্রেক্ষিতে তারেক রহমান ঘুষের টাকা খরচের কথা স্বীকার করে নিচ্ছেন কিনা, জানতে চাইলে মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেন, ‘সাপ্লিমেন্টারি কার্ড হোল্ডারের মাধ্যমে এ ধরনের অর্থ উত্তোলনে বাংলাদেশ তো দূরে থাক বিশ্বের কোথাও মামলা হয়েছে কি না আমার জানা নেই। তার ওপর ওই টাকা তারেক রহমান দেশে ফিরে রিটার্ন করেছেন। সেই ট্যাক্স ফাইলও করা আছে।’
তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে ২৫ থেকে ২৮ জুলাই বাংলাদেশের সকল বারে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের পক্ষ থেকে বিক্ষোভ কর্মসূচিও ঘোষণা করা হয়। ফোরামের পক্ষ থেকে সকল বার নিজেদের সুবিধামতো সময়ে এই কর্মসূচি পালন করবে। আর সুপ্রিম কোর্ট বারে এই চারদিন সোয়া একটা থেকে এই কর্মসূচি পালন করা হবে বলেও জানান মাহবুব উদ্দিন খোকন।

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4751407আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 4এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com নিউজ রুম।

Email-Cvnayaalo@gmail.com সিভি জমা।

 

 

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET