১৮ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, মঙ্গলবার, ৪ঠা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৫ই শাওয়াল, ১৪৪২ হিজরি

শিরোনামঃ-

আজ বাংলা নববর্ষের শুভ সূচনা

Khorshed Alam Chowdhury

আপডেট টাইম : এপ্রিল ১৪ ২০১৬, ০১:৩১ | 709 বার পঠিত

01af9926-4089-4b85-8d98-830c81d3d621_w900_r1_s_123881  ডেস্ক রিপোর্ট-

নমো, নমো, হে বৈরাগী/তপোবহ্নির শিখা জ্বালো জ্বালো,/ নির্বাণহীন নির্মল আলো/অন্তরে থাক জাগি/নমো নমো হে বৈরাগী…

বৈশাখকে এভাবেই ধরাতলে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। চৈত্রের রুদ্র দিনের পরিসমাপ্তি শেষে আজ বাংলার ঘরে ঘরে এসেছে পহেলা বৈশাখ। বাঙালির জীবনের সবচেয়ে আনন্দের। বাংলা ১৪২৩-এর প্রথম দিন আজ।

হাজারও বছরের ঐতিহ্যের ধারাবাহিকতায় আজ বাঙালি হারিয়ে যাবে বাঁধাভাঙা উল্লাসে। উৎসব আর উচ্ছ্বাসে ভরে যাবে বাংলার মাঠ-ঘাট-প্রান্তর। আজ সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে পুরনো সব জরা মুছে ফেলে কণ্ঠে কণ্ঠে বেজে উঠেছে নতুন দিনের গান। ১৪২২-এর আনন্দ-বেদনা, হাসি-কান্নার হিসাব চুকিয়ে শুরু হয়েছে নতুন পথচলা। জাতি-ধর্ম-বর্ণ-গোত্র নির্বিশেষে সর্বজনীন উৎসবে নববর্ষ উদযাপনে আজ এক সঙ্গে সবাই গাইবে ‘এসো হে বৈশাখ এসো এসো’।

গ্রাম থেকে শহর, নগর থেকে বন্দর, আঁকা-বাঁকা মেঠো পথ থেকে অফুরান প্রকৃতি সবখানেই আজ দোল দেবে বৈশাখী উন্মাদনা। মুড়ি-মুড়কি, মণ্ডা-মিঠাইয়ের সঙ্গে সঙ্গে নাচে-গানে, ঢাকেঢোলে, শোভাযাত্রায় পুরো জাতি বরণ করবে নতুন বছরকে। খোলা হবে বছরের নুতন হিসাব নিয়ে হালখাতা। চলবে মিষ্টিমুখের আসর। তারও আগে সকালটা কারো কারো শুরু হয়েছে নগর সংস্কৃতির দান পান্তা-ইলিশ উৎসবে মেতে উঠে।

বুধবার বসন্তের শেষ দিনে চৈত্রসংক্রান্তির নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে জাতি বিদায় জানিয়েছে বাংলা ১৪২২-কে। আজ পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠন এবং সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান বিশেষ কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। এজন্য আজ সরকারি ছুটি। সরকারি-বেসরকারি টেলিভিশন ও রেডিও চ্যানেলগুলো এ উপলক্ষে প্রচার করছে বিশেষ অনুষ্ঠানমালা। সংবাদপত্রগুলো প্রকাশ করেছে ক্রোড়পত্র ও বিশেষ নিবন্ধ।

নির্বিঘ্নে উৎসব পালনে দেশব্যাপী কঠোর নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়েছে। এবারই প্রথম পহেলা বৈশাখ বরণ উপলক্ষে ডিএমপি থেকে ঘোষণা করা হয়েছে বিকেল ৫টার মধ্যে শেষ করতে হবে উন্মুক্ত স্থানে বৈশাখী সব আয়োজন। সেই সঙ্গে নিষিদ্ধ করা হয়েছে মুখোশ আর বিকট আওয়াজের বাঁশি ভুভুজেলা। তবে সন্ধ্যার পর আবদ্ধ স্থানে অনুষ্ঠান করা যাবে। ভুভুজেলা বন্ধের বিষয়টি সর্বমহলে সমাদৃত হলেও বিকেল ৫টার মধ্যে উন্মুক্ত স্থানে আয়োজন সমাপ্তির ঘোষণায় সাংস্কৃতিক অঙ্গনে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

দিনটিতে দেশবাসীকে নতুন বছরের শুভেচ্ছা জানিয়ে পৃথক বাণী দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী, বিরোধী দলের নেতা রওশন এরশাদ, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদসহ রাজনৈতিক দলের প্রধানরা।

ঐতিহ্যের বহমানতায় এবারো বর্ষবরণের সবচেয়ে আকর্ষণীয় সম্মেলন হচ্ছে ছায়ানটের আয়োজনে রমনা বটমূলে। এবার মানবতার বাণী ধ্বনিত হবে ছায়ানটের পুরো আয়োজনে। বরাবরের মতো পহেলা বৈশাখে ভোর সোয়া ছয়টায় ভোরের রাগালাপ দিয়ে সূচনা হবে এ আয়োজনের। কবি নির্মলেন্দু গুণ কবিতায় তাইতো বলেছেন ‘এসো বলতেই শতাব্দী প্রাচীন বটবৃক্ষের/নবীন পল্লবশোভা নৃত্যভঙ্গিমায় জেগে উঠলো/ বৈশাখের প্রথম প্রহরে। বৃত্তায়ন পূর্ণ করে/যেন সূর্যের মাধ্যমে আকাশ পাঠালো তার/স্বর্গীয় শুভেচ্ছাবার্তা, আমাদের মর্তভূমিতে।/বীণার ঝংকারে দুলে উঠলো রমনা পার্ক/ রবীন্দ্রসঙ্গীতে, নজরুলে, অতুলে, লালনে।’

রবিঠাকুরের গানের পঙ্ক্তি ‘অন্তর মম বিকশিত করো অন্তরতর হে’ স্লোগানে পহেলা বৈশাখ ১৪২৩-এর মঙ্গল শোভাযাত্রা বের হবে সকাল ৯টায় চারুকলা থেকে। শিশু পার্কের প্রবেশ দ্বারে নারকেলবিথী চত্বরে ৩৩ বছরের ঐতিহ্য নিয়ে পহেলা বৈশাখে অনুষ্ঠান আয়োজন করে আসছে ঋষিজ শিল্পীগোষ্ঠী। এবারো তার ব্যতিক্রম হচ্ছে না। আজ সকাল পৌনে ৮টায় শুরু হচ্ছে ঋষিজের বৈশাখী আয়োজন। এবার বর্ষবরণ অনুষ্ঠানটি উদ্বোধন করবেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন। এতে উপস্থিত থাকবেন গণসঙ্গীত শিল্পী ফকির আলমগীর।

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির আয়োজনে বিকেল ৫টা থেকে একাডেমি মাঠের নন্দমঞ্চে থাকছে নববর্ষের অনুষ্ঠান। এতে দেশের খ্যাতনামা সব শিল্পী সঙ্গীত, নৃত্য আবৃত্তি পরিবেশন করবেন। নববর্ষ উপলক্ষে দিনব্যাপী নানা আয়োজন করেছে বাংলা একাডেমি। সকাল ৭টা থেকে একাডেমির নজরুল মঞ্চসহ বিভিন্ন অডিটোরিয়ামে একক বক্তৃতা, কবিতা আবৃত্তি, সঙ্গীত অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। এছাড়াও থাকছে বইয়ের আড়ং। বিকাল চারটায় বিসিক ও বাংলা একাডেমির যৌথ উদ্যোগে ১০ দিনব্যাপী বৈশাখী মেলার উদ্বোধন করা হবে।

এছাড়াও রমনার বটমূল থেকে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান, চারুকলা, টিএসসি, ছবির হাট, ধানমণ্ডির রবীন্দ্র সরোবরসহ রাজধানীর সর্বত্রই ভোর থেকে রাত পর্যন্ত বৈশাখী উন্মাদনায় হারিয়ে যাবে শিশু-কিশোর, তরুণ-তরুণী, যুবক-যুবতীসহ সব শ্রেণী-পেশার ও সব ধর্মের মানুষ। এই একটি মাত্র অসাম্প্রদায়িক উৎসব জাতির জীবনে শুধু আনন্দই বয়ে আনে না, বয়ে আনে মানুষে মানুষে সম্প্রীতি ও ভ্রাতৃত্বের সেতুবন্ধ তৈরির অনন্য সুযোগ।

‘বাংলা নববর্ষ ১৪২৩’ জাঁকজমকপূর্ণভাবে উদযাপনের লক্ষ্যে জাতীয় পর্যায়ে ব্যাপক কমসূচি গ্রহণ করেছে সরকার। বাংলা নববর্ষের তাৎপর্য তুলে ধরে সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয় ও বাংলা একাডেমির উদ্যোগে বিভিন্ন জাতীয় পত্রিকায় ক্রোড়পত্র প্রকাশ করা হয়েছে। বিভাগীয় শহর, জেলা শহর ও সব উপজেলায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজনসহ আলোচনা সভা ও গ্রামীণ মেলার আয়োজন করছে স্থানীয় প্রশাসন। বাংলাদেশ শিশু একাডেমি, গণগ্রন্থাগার অধিদফতর, বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর সাংস্কৃতিক ইন্সটিটিউটগুলো, বিসিক নানা অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করেছে। এ উপলক্ষে বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশন ঐতিহ্যবাহী বৈশাখী মেলার আয়োজন করেছে।

বাংলা বর্ষের প্রথম দিনে সব কারাগার, হাসপাতাল ও শিশু পরিবারে (এতিমখানা) উন্নতমানের ঐতিহ্যবাহী বাঙালি খাবারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। শিশু পরিবারের শিশুদের নিয়ে ও কারাবন্দিদের পরিবেশনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে এবং কয়েদিদের তৈরি বিভিন্ন দ্রব্য প্রদর্শনীর ব্যবস্থা করা হয়েছে। বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর, বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশন এবং প্রত্নতত্ত্ব অধিদফতরের ব্যবস্থাপনায় জাদুঘর ও প্রত্নস্থানগুলো সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত রাখা হচ্ছে (শিশু-কিশোর, প্রতিবন্ধী ও ছাত্রছাত্রীদের বিনা টিকিটে)। সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে স্ব-স্ব ব্যবস্থাপনায় জাঁকজমকপূর্ণভাবে বাংলা নববর্ষ উদযাপন করা হচ্ছে। বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশ মিশনগুলো এ উপলক্ষে বিশেষ অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করেছে। অভিজাত হোটেল ও ক্লাব বিশেষ অনুষ্ঠানমালা এবং ঐতিহ্যবাহী বাঙালি খাবারের আয়োজন করেছে।

হোটেল সোনারগাঁও, রেডিসন, ওয়েস্টিন, ঢাকা রিজেন্সিসহ হোটেল-রেস্টুরেন্টেগুলোর উদ্যোগেও উদযাপিত হবে নতুন বছরের উৎসব। ঢাকা ক্লাব, গুলশান ক্লাব, উত্তরা ক্লাবের উদ্যোগে পহেলা বৈশাখ উদযাপিত হবে। মোবাইল অপারেটরগুলোও নিজ উদ্যোগে বিভিন্ন কর্মসূচির আয়োজন করেছে।

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4531077আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 2এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com নিউজ রুম।

Email-Cvnayaalo@gmail.com সিভি জমা।

 

 

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET