২রা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার, ১৮ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২২শে জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি

শিরোনামঃ-
  • হোম
  • খুলনা
  • আবু নাসের হাসপাতালের আইসিইউ চালু না হওয়ায় নষ্ঠ হচ্ছে কোটি কোটি টাকার সম্পদ

আবু নাসের হাসপাতালের আইসিইউ চালু না হওয়ায় নষ্ঠ হচ্ছে কোটি কোটি টাকার সম্পদ

প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

আপডেট টাইম : সেপ্টেম্বর ২৮ ২০১৬, ১৩:৩০ | 720 বার পঠিত

মেহেদী হাসান,খুলনা।-অবকাঠামো ও আধুনিক যন্ত্রপাতি থাকা সর্তেও শুধুমাত্র অভিজ্ঞ ডাক্তার, দক্ষ সেবিকা ও টেকনিসিয়ানের অভাবে চালু হচ্ছে না খুলনার শহীদ শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র বা আইসিইউ। এতে কাঙ্কিত সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষ। খুলনায় হাতে গোনা এক/দুইটি বেসরকারি ক্লিনিকে এই সুবিধা থাকলেও প্রচুর পরিমানে অর্থের বিনিময়ে সেখান থেকে সেবা নিতে হয় রোগীদের। হাসপাতালের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন ইউনিটটি চালুর ব্যাপারে বার বার সংশ্লিষ্ট দপ্তরে জানানো হলেও এখনও পর্যন্ত সুফল মেলেটি।

চারটি শীতাতাপ নিয়ন্ত্রিত কক্ষসহ প্রায় তিন হাজার বর্গফুটের একটি দৃষ্টিনন্দন ঘর। আনা হয়েছে ১০টি আইসিইউ ভেনটিলেটর; যার প্রতিটির মূল্য ৩০ লক্ষাধিক টাকা। বসানো হয়েছে ১০টি আইসিইউ প্যারামাউন্ট বেড; যার মূল্য প্রায় আশি লক্ষ টাকা। এছাড়া থরে থরে সাজোনো আছে কার্ডিয়াক মনিটর, সিরিঞ্জ পাম্প, ইনফিউশন পাম্প, সকার মেশিন, এমপিএল সিস্টেম, মোবাইল এক্সরে মেশিন, আটারিয়াল ব্লাড গ্যাস, কালার ডপলার, এ্যানালাইজার, সেন্ট্রাল মনিটরিং সিস্টেমসহ কোটি কোটি টাকার অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি। এছাড়া আইসিইউ’র সাথেই প্রস্তুত রয়েছে এই ইউনিটের জন্য একটি নিজস্ব প্যাথলজি সেন্টার। যেখানে আছে ইলেকট্রোলাইট, গ্যাস স্ট্রেলাইজার, ব্লাড ব্যাংক রেফ্রিজারেটর, সেন্ট্রিফিউজ, মাইক্রোসকোপসহ অনেক কিছু। তার উপর এই ইউনিটের পাশেই প্রস্তত আছে হাই ডিপেনডেন্সি ইউনিট (এইচডিইউ) বা পোস্ট আইসিইউ। আইসিইউ চালু না হওয়ার কারণে অকার্যকর এ দুটি বিভাগও।

শহীদ শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালের ইন্সুট্রুমেন্ট কেয়ারটেকার এস এম শাকিব হাসান জানান, কোন মেসিনারিজ এক বছর, কোনটি দুই বছর আবার কোনটি প্রায় তিন বছর আগে আনা। কিন্তু এখনও সেগুলো ব্যবহার হয়নি। তবে এরই মধ্যে অনেক মেসিনারিজের ওয়ারোন্টির মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে। আবার কিছু মেসিনারিজ চলবে কিনা এনিয়েও সন্দিহান তারা। তবে ব্যটারী চালিত যন্ত্রগুলো মাঝে মধ্যে চালু করে ঠিক রাখা হয় বলেও জানান তিনি। আর এই ইউনিটের ইনচার্জ ডাঃ মোঃ বেলাল উদ্দিন জানান, প্রতিস্থাপনের সময় মেসিনারিজগুলো আমাদের পরীক্ষা করে নেওয়ার কথা। কিন্তু দক্ষ জনবল না থাকার কারনে সে সুযোগ ছিল না। তিনি আরও বলেন, প্রতিটি যন্ত্রের একটি নির্দিষ্ট লাইফ টাইম থাকে। আর সেটি শুধু মাত্র চালু রাখলেই বোঝা যায়। কিন্তু এখানে আসা যন্ত্রপাতিগুলো না চালানোর জন্য বোঝাই যাচ্ছে কোটি কোটি টাকার সম্পদের বাস্তব অবস্থা কি। আবার দীর্ঘ দিন ব্যবহার না করার ফলে অকেজো হতে বসেছে অনেক যন্ত্রপাতি।

হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডাঃ শহীদুল ইসলাম মুকুল বলেন, ১০ শয্যা বিশিষ্ট একটি আইসিইউ চালু করতে প্রয়োজন বিশেষজ্ঞ ডাক্তার, প্রশিক্ষিত সেবিকা ও দক্ষ টেকনিসিয়ান। কিন্তু তার কোনটিই নেই আবু নাসের হাসপাতালের। তাই সবকিছু ঠিকঠাক থাকলেও চালু হচ্ছে না আইসিইউটি। তবে এটি চালু হলে ন্যুনতম খরচে এখান থেকে মূমুর্ষ রোগীরা সেবা নিতে পারবে। তখন আইসিইিউ’র অভাবে এ অঞ্চলের মানুষকে বিপুল অংকের অর্থ খরচ করে ঢাকা কিংবা অন্যত্র যেতে হবে না। তিনি আরও বলেন, যে সকল যন্ত্রপাতি এখানে আনা হয়েছে সেটা এ অঞ্চলের মানুষের জন্য আশীর্বাদ। শুধু চালু না হওয়ায় সুফল পাচ্ছেনা রোগীরা।

তবে হাসপাতালের পরিচালক ডাঃ বিধান চন্দ্র গোস্বামী জানিয়েছেন, বর্তমানে হাসপাতালে ৪১টি কনসালট্যান্ট ও মেডিকেল অফিসার বা সমমানের পদ রয়েছে। কিন্তু এসব পদের মধ্যে শূন্য রয়েছে ১৮টি। ফলে একদিকে যেমন দৈনন্দিন চিকিৎসা কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে, তেমনি জনবলের অভাবে আইসিইউর মতো গুরুত্বপূর্ণ বিভাগ চালু সম্ভব হচ্ছে না। তিনি আরও বলেন, এই ইউনিটটি চালু করতে ১০ জন অতিরিক্ত ডাক্তার, পাঁচজন অ্যানেসথেটিস্ট ও ২০ জন সেবিকার জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ে লিখিত আবেদন করা হয়েছে। এরপর সম্পন্ন হয়েছে বহুবার চিঠি চালাচালি। মৌখিক ভাবে জানানো হয় প্রতিনিয়ত। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের একটি প্রতিনিধিদল হাসপাতাল পরিদর্শনও করেছেন। সর্বশেষ স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সাথেও এ বিষয়ে বৈঠক হয়েছে। কিন্তু এখনও সুফল না পাওয়ায় তিনি ইউনিটটি দ্রুত চালুর ব্যাপরে সংশ্লিষ্ট দপ্তরের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

২৫০ শয্যার শহীদ শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালটি ২০১০ সালের ৩০ মার্চ মাত্র ৩০টি শয্যা নিয়ে কার্যক্রম শুরু করে। শুরুতে চালু ছিল কার্ডিওলজি ও কিডনি বিভাগ। বর্তমানে এখানে ইউরোলজি, নিউরোলজি ও কর্ডিওলজিসহ রয়েছে ১০টি বিভাগ। আর শয্যাসংখ্যা ১৫১টি।

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4662632আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 6এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com নিউজ রুম।

Email-Cvnayaalo@gmail.com সিভি জমা।

 

 

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET