২৫শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার, ১০ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৪ই জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি

শিরোনামঃ-
  • হোম
  • সকল সংবাদ
  • একের পর এক বিয়ে করার পরও নিজেকে কুমারী দাবি করে খুলনার-শাহরীন ইসলাম

একের পর এক বিয়ে করার পরও নিজেকে কুমারী দাবি করে খুলনার-শাহরীন ইসলাম

Khorshed Alam Chowdhury

আপডেট টাইম : সেপ্টেম্বর ২৫ ২০১৬, ১৪:১৭ | 658 বার পঠিত

mehedi-hasan-khulnaমেহেদী হাসান,খুলনা থেকে-  একের পর এক বিয়ে করার পরও নিজেকে কুমারী দাবি করে প্রতারণা ও অর্থ হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা করেছেন এক স্বামী।
খুলনা জেলার রূপসা থানার নৈহাটি গ্রামের আবুল খায়েরের ছেলে ইমরান শেখ তার স্ত্রী শাহরীন ইসলাম নীলাসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে গত ১৬ জুন ঢাকা সিএমএম আদালতে এই মামলা করেন। অপর দুই আসামি হলেন নীলার বাবা শাহ আলম এবং মা রাজিয়া বেগম। তাদের বাড়ি নারায়ণগঞ্জ জেলার আড়াই হাজার থানার লেঙ্গুরদী গ্রামে।
ওই দিনই ঢাকা মহানগর হাকিম সাজ্জাদুর রহমান মিরপুর থানাকে অভিযোগ তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন। প্রসঙ্গক্রমে উল্লেখ করা যায় যে, শাহরীন ইসলাম নীলা বর্তমানে ঢাকার মিরপুরে বাস করেন।
আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী, মিরপুর থানার এসআই ফরিদা পারভীন লিয়া অভিযোগ তদন্ত করে গত ১৯ জুলাই প্রতিবেদন দাখিল করেন। প্রতিবেদনে এইআই ফরিদা পারভীন লিয়া উল্লেখ করেন, নিজেকে কুমারী হিসেবে দাবি করে শাহরীন ইসলাম নীলা চারটি বিয়ে করেছেন। এই চার বিয়ের কাগজপত্রও রয়েছে।
বুধবার বিচারক সাজ্জাদুর রহমান ওই প্রতিবেদন গ্রহণ করে আসামি নীলাসহ ৩ জনকে আদালতে হাজির হতে সমন জারি করেন।
মামলায় অভিযোগে বলা হয়, বাদী ২০১৪ সালের ৩ জুলাই নীলাকে বিয়ে করেন। দেনমোহর ধার্য করা হয় দুই লাখ টাকা। বিয়ের সময় নীলা নিজেকে কুমারী দাবি করেন এবং তার মা-বাবাও তা সমর্থণ করেন।
বিয়ের পর বাদী জানতে পারেন, তার সঙ্গে বিয়ের আগে ২০১০ সালের ১৫ অক্টোবর জনৈক নান্টুকে নীলা প্রথম বিয়ে করেন। পরবর্তী সময়ে ২০১৩ সালের ১০ মার্চ নীলা নিজেকে কুমারী দাবি করে জনৈক ওয়াদুদকে বিয়ে করেন। এরপর পূর্বের দুটি বিয়ের কথা গোপন করে নিজেকে কুমারী দাবি করে ২০১৪ সালের ৩ জুলাই বাদীকে বিয়ে করেন।
আগের বিয়ে নিয়ে বাদীর সঙ্গে দাম্পত্য কলহ শুরু হলে ২০১৫ সালে আসামী নীলা এই বাদীর বিরুদ্ধে যৌতুক আইনে একটি মামলা করেন। এরপর বাদীর সঙ্গে বিয়ে বিদ্যমান থাকা অবস্থায় পুনরায় নিজেকে কুমারী দাবি করে গত ১৩ জানুয়ারী জনৈক সুমনকে বিয়ে করেন।
মামলায় আরও বলা হয়, নীলা নিজেকে কুমারী দাবি করে এভাবে একের পর এক বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে বর্তমান ও আগের স্বামীদের কাছে থেকে অর্থ-সম্পদ আদায় করে থাকেন।
আদালতের সহকারি পাবলিক প্রসিকিউটর আজাদ রহমান বলেন, ‘বাংলাদেশ দণ্ডবিধির ৪৯৫ ধারায় পূর্বের বিয়ে গোপন ও প্রতারণা করার দায়ে শাস্তির বিধান রয়েছে। ওই ধারা অনুযায়ী, এ ধরনের প্রতারণার দায়ে ১০ বছর পর্যন্ত সশ্রম বা বিনাশ্রম কারাদণ্ডের বিধান রয়েছে।’

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4645675আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 2এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com নিউজ রুম।

Email-Cvnayaalo@gmail.com সিভি জমা।

 

 

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET