২রা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, মঙ্গলবার, ১৭ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৭ই রজব, ১৪৪২ হিজরি

শিরোনামঃ-

কটারকোনা-নছিরগঞ্জ সড়কে যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ

Khorshed Alam Chowdhury

আপডেট টাইম : মে ১৮ ২০১৭, ০২:৪২ | 657 বার পঠিত

সৈয়দ মুন্তাছির রিমন : শমশেরনগর থেকে কুলাউড়া উপজেলার ব্রাহ্মণবাজার সড়কের দীর্ঘ ২৩ কিলোমিটারের অধিকাংশ স্থানের পিচ ঢালা উটে ছোট বড় অসংখ্য গর্তের সৃস্টি হয়েছে। গর্তে ভরা এই সড়ক দিয়ে সকার প্রকার যানবাহন চলাচল এখন অসহনীয় হয়ে পড়েছে। সড়কটির বেহাল অবস্থায় ২৫ মিনিটের পথে সময় লাগছে ১ ঘন্টা। কমলগঞ্জ-কুলাউড়া সড়কের বাইপাস এই সড়ক দিয়ে যানবাহনগুলো প্রতিদিন অত্যন্ত ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে। সড়কে যাতায়াতকারী যাত্রীদের পোহাতে হচ্ছে চরম দুর্ভোগ। দেখা যায়- মনু নদী ঘেষা কটারকোনা হইতে নছিরগঞ্জ ভায়া পীরেরবাজার হয়ে শমশেরনগর পর্যন্ত প্রায় ১২ কিলোমিটার দৈর্ঘ্য এই সড়কটি হাজীপুর ও শরিফপুর ইউনিয়নের বাসিন্দাদের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একমাত্র সড়ক। হাজীপুর, মনু, পাইকপাড়া, নছিরগঞ্জ এলাকার জনগন এবং মালামাল পরিবহনের কুলাউড়ার সাথে যোগাযোগের একমাত্র এ সড়ক। এই সড়ক দিয়ে বর্তমানে প্রতিদিন শত শত ছোট যানবাহন চলাচল করছে। ব্যাপক সংখ্যক যানবাহন চলাচললে এবং গত বৃষ্টির কারনে ইট, বালু, খোয়া উঠে গিয়ে সড়কে খানাখন্দকে পরিনত হয়েছে। কোথাও কোথাও বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়ে মরণফাঁদে পরিণত হয়েছে। ফলে বিপুল সংখ্যক সিএনজিসহ অনেক ছোট যানবাহন দুর্ঘটনায় কবলিত হচ্ছে। মুনদীর পাশ দিয়ে রাস্তা থাকায় অত্যন্ত ঝুঁকি নিয়ে যানবাহনসহ লোকজন যাতায়াত করছে। নছিরগঞ্জ ও পীরেরবাজার হইতে কটারকোনা যেথে যেখানে বড়জোড় ১৫/২০ মিনিট সময় লাগার কথা, সেখানে সড়কটির বেহাল অবস্থার কারণে সময় লাগছে এক থেকে দেড়ঘন্টা। রাস্তার এই বেহাল অবস্থার কারণে এই সড়কে চালিত সিএনজির বিভিন্ন যন্ত্রাংশ বিকল হয়ে পড়ছে বলে সিএনজির চালকরা জানান। তাছাড়া এই সড়কে ছোট বড় দুর্ঘটনা নিত্যদিন ঘটছে। বৃষ্টিপাতে গর্তে পানি জমে সড়কটিতে কাঁদার সৃষ্টি হওয়ায় সড়কটিতে যান চলাচলের উপযোগী করতে এবং অনাকাঙ্খিত দুর্ঘটনা ঘটেই যাচ্ছে। দেখার যেন কেউ নেই। তাই এই সড়কটি ইট ও বালি দিয়ে সংস্থার করা প্রয়োজন বলে মনে করছেন্ স্থানীয় এলাকার সচেতন মহল। এই সড়কে চলাচলকারী সিএনজির চালক ফারুক আহমেদ, সুমন আহমদ, নূর মিয়া, ইউকে প্রবাসী আহমদুর রহমান নোমান, মনু বাজারের বিশিষ্ট ডা: মঈন উদ্দিন আহমদ বলেন, প্রতিদিন এই পথে তারা যাতায়ত করতে হয়। সড়কের বর্তমান অবস্থায় চলাচলে অনুপযোগি হয়ে উঠেছে। তারা আরও বলেন, যে ভাবে গর্তের সৃস্টি হয়েছে যাওয়ার পথে ঝাঁকুনিতে সুস্থ্য যাত্রীরা সহ্য করে যানবাহনে যাতায়ত করলেও কোন রোগীকে নিয়ে এই সড়কে যাতায়াত করা যাচ্ছে না। মনু এলাকার বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী ইউকে প্রবাসী আহমদুর রহমান নোমান বলেন, সংস্কারের ১ বছরের মাথায় সড়কটি চলাচলের অনুপযোগি হয়ে পড়ছে। তিনি আরও বলেন, কুলাউড়া উপজেলার সড়ক ও জনপথ প্রকৌশলীর সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করে পাওয়া যায়নি। এ সড়কটি সংস্কারের জন্য মৌলভীবাজার-২ আসনের এমপি আব্দুল মতিন সাহেবকে অবগত করা হয়েছে বলে প্রবাসী জানান। তবে এ ব্যাপারে ১১ মে উপজেলা মাসিক সভায় এ সড়কটির কথা উপস্থাপন করেন হাজীপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল বাছিত বাচ্ছু।

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4394636আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 8এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET