২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার, ৮ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৫ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি

শিরোনামঃ-
  • হোম
  • রাজনীতি
  • খালেদা জিয়ার জাতীয় ঐক্যের আহবানে সাড়া না দেয়া জাতির প্রতি দায়িত্বহীনতার পরিচয়: ২০ দলীয় জোট

খালেদা জিয়ার জাতীয় ঐক্যের আহবানে সাড়া না দেয়া জাতির প্রতি দায়িত্বহীনতার পরিচয়: ২০ দলীয় জোট

Khorshed Alam Chowdhury

আপডেট টাইম : জুলাই ১৪ ২০১৬, ০২:২৫ | 663 বার পঠিত

71312_71310_9999নয়া আলো ডেস্ক- খালেদা জিয়ার জাতীয় ঐক্যের আহবানে ক্ষমতাসীন জোটের সাড়া না দেয়াকে ‘জাতির প্রতি দায়িত্বহীনতার পরিচয় দিয়েছে’ মনে করে ২০ দলীয় জোট।
বুধবার রাতে খালেদা জিয়ার সঙ্গে জোটের বৈঠক শেষে এক সংবাদ ব্রিফিঙে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ্ই কথা বলেন।
তিনি বলেন, ‘‘ ১৪ দলের নেতৃবৃন্দ ও আওয়ামী লীগের কিছু উর্ধতন নেতৃবৃন্দ তারা দেশনেত্রীর জাতীয় ঐক্যের আহবানকে উপেক্ষা করে প্রকৃতপক্ষে জাতির আশা-আকাংখাকে উপেক্ষা করেছেন এবং দলীয় সংকীর্ণতার উর্ধেব না পেরে তারা কিছুটা অবশ্যই দায়িত্বহীনতার পরিচয় দিয়েছেন।”
‘‘ এই জাতির এই মুহুর্তে ঐক্যবদ্ধ হওয়া প্রয়োজন যে ভয়াবহ সংকট থেকে উত্তীর্ণ হবার জন্যে, সেই মুহুর্তে তারা জাতিকে বিভক্ত করতে চাইছে এবং জাতিকে বিভক্তের মধ্যে ফেলতে চাইছে। ২০ দলীয় নেতৃবৃন্দ এই বক্তব্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছে।”
একই সরকারকে জোট নেত্রীর জাতীয় ঐক্যের আহবানের সাড়া দেয়ার কথাও বলেন ফখরুল।
‘‘ দেশনেত্রীর জাতীয় ঐক্যের আহবানকে পুরোপুরিভাবে পূর্ণ সমর্থন দিয়ে ও সাড়া দিয়ে জাতির প্রতি তাদের দায়িত্ব পালন করবার আহবান জানিয়েছে ২০ দলীয় জোট।”
মির্জা ফখরুল জানান, দলীয় ফোরামের নেতৃবৃন্দ ও বিশিষ্ট নাগরিক ও পেশাজীবীদের সঙ্গে বৈঠকের পর বিএনপি চেয়ারপারসন পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।
তবে জোটের একাধিক নেতার সঙ্গে বৈঠকের পর আলোচনা করে জানা গেছে, বৈঠকে জোট নেতারা ঢাকায় একটি উগ্রবাদ ও সন্ত্রাস বিরোধী জাতীয় কনভেনশন অনুষ্ঠান, জেলা ও মহানগরে সন্ত্রাস বিরোধী সমাবেশ অথবা সেমিনারের মাধ্যমে সারাদেশে উগ্রবাদের বিরুদ্ধে জনমত গড়ে তোলার প্রস্তাব দেয়া হয়।
গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালযে রাত সাড়ে ৮টা থেকে দেড় ঘন্টা স্থায়ী বৈঠকে দেশের সার্বিক পরিস্থিতি, সম্প্রতি সংঘটিত গুলশানের ক্যাফের বন্দুকধারীদের হামলার ঘটনার সহ রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়।
বিএনপি চেয়ারপারসন জোট নেতাদের কাছে কী করণীয় সে বিষয়ে তাদের মতামতও শুনেন।
খালেদা জিয়ার সভাপতিত্বে ২০ দলীয় জোটের এই বৈঠকে জোটের শরিক শীর্ষ নেতাদের মধ্যে বিজেপির আন্দালিব রহমান পার্থ, কল্যাণ পার্টির সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, জাতীয় পার্টি(কাজী জাফর) টিআইএম ফজলে রাব্বী চৌধুরী, জাগপার শফিউল আলম প্রধান, এনডিপির খন্দকার গোলাম মূর্তজা, এনপিপির ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, লেবার পার্টির মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, ন্যাপের জেবেল রহমান গানি, ন্যাপ-ভাসানীর আজহারুল ইসলাম, ইসলামিক পার্টির আবু তাহের চৌধুরী ছিলেন।
যুদ্ধাপরাধে অভিযুক্ত জামায়াতে ইসলামীর শীর্ষ নেতৃবৃন্দের ফাঁসির দন্ড কার্য্কর হওয়ায় দলের প্রতিনিধিত্ব করেন কর্ম পরিষদের সদস্য আবদুল হালিম।
এছাড়া বৈঠকে আছেন, জোটের অন্য শরিকদের শীর্ষ নেতাদের প্রতিনিধিত্ব করে ইসলামী ঐক্যজোটের মহাসচিব মাওলানা আবদুল করীম খান, মুসলিম লীগের মহাসচিব জুলফিকার বুলবুল চৌধুরী, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক সাঈদ আহমেদ, এলডিপির যুগ্ম মহাসচিব সাহাদাত হোসেন সেলিম, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মুফতি মহিউদ্দিন ইকরাম, পিপলস লীগের সৈয়দ মাহবুব হোসেন।
বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর উপস্থিত ছিলেন।
বৈঠকের পর মির্জা ফখরুল জোট নেতাদের নিয়ে সংবাদ ব্রিফিঙে বৈঠকের সিদ্ধান্তসমূহ সাংবাদিকদের জানান।
তিনি বলেন, ‘‘ ২০ দলীয় জোট গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে সন্ত্রাসীদের হামলায় ইতালীয়, জাপানী, ভারতীয় ও যুক্তরাস্ট্রের নাগরিকসহ ২২ জন নিহত হওয়ার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে। জোট এই ঘটনা শোক প্রকাশ করছে। নিহতদের আত্মার শান্তি কামনা ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করছে।”
বৈঠকে গুলশানের ঘটনার পর সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া সন্ত্রাস ও উগ্রবাদ মোকাবিলায় যে জাতীয় ঐক্যের আহবান জানিয়েছেন, তার প্রতি পূর্ণ সমর্থন জানিয়েছে ২০ দলীয় জোট বলেন ফখরুল।
২০ দলীয় জোটের বৈঠকের পরপরই খালেদা জিয়া স্থায়ী কমিটির সদস্যসহ জ্যেষ্ঠ নেতাদের নিয়ে বৈঠক করেন। এই বৈঠকে মহাসচিবসহ খন্দকার মোশাররফ হোসেন, মওদুদ আহমদ, আসম হান্নান শাহ, জমির উদ্দিন সরকার, রফিকুল ইসলাম মিয়া, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান, শাহ মোয়াজ্জেম হোসেন, চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ, হাফিজউদ্দিন আহমেদ, আবদুল্লাহ আল নোমান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, সেলিমা রহমান, মোহাম্মদ শাহজাহান প্রমূখ নেতারা উপস্থিত ছিলেন।
গুলশানে ক্যাফেতে হামলায় প্রাণহানির পর জঙ্গিবিরোধী জাতীয় ঐক্যের আহ্বান জানানো বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ২০ দলীয় জোটের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে বসলেন।
গত ১ জুলাই রাতে গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে অস্ত্রধারীদের হামলায় ১৭ বিদেশিসহ ২২ জন নিহতের পর সপ্তাহ না হতেই ঈদের সকালে শোলাকিয়ায় পুলিশের ওপর হামলা হয়। ঈদ জামাতের আগে ওই হামলায় দুই পুলিশ এবং পরে পুলিশের সঙ্গে জঙ্গিদের গোলাগুলির মধ্যে এক গৃহবধূ নিহত হন।
গুলশান হামলায় নিহতদের স্মরণে মঙ্গলবার শোক কর্মসূচি পালন করে বিএনপি।
ওই হামলার পর এক সংবাদ সম্মেলনে জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে দল-মত নির্বিশেষে সন্ত্রাসবিরোধী ঐক্য গড়ে তোলার আহ্বান জানান খালেদা জিয়া।
সর্বশেষ গত ৪ এপ্রিল ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনের থাকা না থাকার বিষয়ে আলোচনা করতে জোটের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন খালেদা জিয়া।

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4725739আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 2এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com নিউজ রুম।

Email-Cvnayaalo@gmail.com সিভি জমা।

 

 

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET