২৭শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার, ১২ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৯শে সফর, ১৪৪৩ হিজরি

শিরোনামঃ-

খুলনায় সরকারি গোডাউন থেকে চাল পাচারে ১০ সদস্যের সিন্ডিকেট

প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

আপডেট টাইম : নভেম্বর ০৩ ২০১৬, ১৯:৫৬ | 676 বার পঠিত

মেহেদী হাসান , খুলনা থেকেঃ-

খুলনার বৈকালী এলাকায় অবস্থিত কেন্দ্রীয় খাদ্য গুদাম (সিএসডি) থেকে সরকারি চাল পাচারের চাঞ্চল্যকর তথ্য বেরিয়ে আসছে। পাচারযজ্ঞের সঙ্গে খোদ রাষ্ট্রীয় এ প্রতিষ্ঠানের প্রধানসহ অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারীদেরও জড়িত থাকার প্রমান মিলেছে। মূলত: সিএসডি গোডাউনের এসব অসাধু কর্মকর্তা, ডিলার এবং গুদাম হ্যান্ডলিং শ্রমিক নেতাদের সঙ্গে যোগসাজসে ১০ সদস্যের একটি সি-িকেট দীর্ঘ দিন ধরে এ কর্মকা-  করছে।
এদিকে, নির্দিষ্ট তথ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে র‌্যাব খালিশপুর থানায় চাল পাচারের ঘটনায় মামলা দায়ের করেছে। মামলায় সিএসডি’র ম্যানেজার ও দু’ জন গুদাম ইনচার্জসহ ৮জনকে আসামি করা হয়েছে। এছাড়া ঘটনা তদন্তে খাদ্য মন্ত্রনালয়ের নির্দেশে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করেছে খাদ্য অধিদপ্তর। জেলা প্রশাসন ও র‌্যাবের প্রতিবেদনের পর আরও একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে বলে জানিয়েছে খাদ্য বিভাগ।
র‌্যাব ও স্থানীয় একাধিক সূত্র জানিয়েছে, গুদাম থেকে চাল চুরি করে পাচারের সঙ্গে খোদ গোডাউন ম্যানেজার মাহবুবুর রহমান খানসহ বেশ কয়েকজন কর্মকর্তার জড়িত। এর মধ্যে ২৬ নম্বর গোডাউন ইনচার্জ ইলিয়াস হোসেন এবং ১৭ নম্বর গোডাউন ইনচার্জ নূর নবীর সম্পৃক্ততার প্রমান পেয়েছে র‌্যাব। এছাড়াও এ কর্মকা-ের সঙ্গে খলিল মোল্লাসহ কয়েকজন ডিলার ও চাল ব্যবসায়ী এবং গুদাম হ্যান্ডলিং শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি নাসির উদ্দিন সরদার, সাধারণ সম্পাদক আলী আসগর সরদার এবং মোস্তফা কামাল ভুট্টসহ বেশ কয়েকজন শ্রমিক নেতা জড়িত রয়েছে।
মঙ্গলবার রাতে ফুলতলা উপজেলার পেপসি ডিপো সংলগ্ন স্থান থেকে ১৩ হাজার ৬৯০ কেজি চালসহ ট্রাক আটকের ঘটনায় র‌্যাব-৬’র স্পেশাল কোম্পানির পরিদর্শক (শহর ও যান) খোন্দকার হোসেন আহম্মদ বাদি হয়ে উল্লিখিতদের আসামি করে খালিশপুর থানায় মামলা দায়ের করেছেন। একই সঙ্গে গ্রেফতারকৃত মামলার দু’ আসামি চাল ব্যবসায়ী খলিল মোল্লা ও গুদাম হ্যান্ডলিং শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আলী আসগর সরদারকে থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। তবে অন্য আসামিদের গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।
গ্রেফতার চাল ব্যবসায়ী খলিল মোল্লা র‌্যাবের কাছে স্বীকার করেন, ৬ লাখ টাকা মূল্যের চাল তার কাছে ৪ লাখ টাকায় বিক্রি করা হয়। হ্যান্ডলিং শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি নাসির উদ্দিন সরদার, সাধারণ সম্পাদক আলী আসগর সরদার ও মোস্তফা কামাল ভুট্ট তার কাছ থেকে ২ লাখ টাকা অগ্রীম নিয়ে ট্রাকে (সাতক্ষীরা-ট-১১-০০২০) চাল তুলে দেন। বাকি টাকা নেওয়ার জন্য মোস্তফা কামাল ভুট্ট তার সঙ্গে মোটর সাইকেলে ট্রাকের পেছনে যাচ্ছিলেন। এরা দীর্ঘ দিন ধরে এভাবে চাল পাচার করে সেসহ অন্যান্য ব্যবসায়ীর কাছে বিক্রি করে আসছে বলেও জানান তিনি।
মামলার তদন্ত কর্মকর্তা খালিশপুর থানার এস আই কানাই লাল মজুমদার জানান, গ্রেফতারকৃত দুই আসামিকে বৃহস্পতিবার আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে। রোববার তাদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে রিমান্ডের আবেদন জানানো হবে। রিমা-ে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদে চাল পাচার সি-িকেটের অন্য সদস্যদের সম্পর্কে আরও তথ্য পাওয়া যাবে বলে আশা করছেন তিনি। এদিকে, সরকারি গোডাউন থেকে চাল পাচারের ঘটনায় খাদ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে বৃহস্পতিবার তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক ফরহাদ খন্দকারকে প্রধান করে এ কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির অপর দুই সদস্য হচ্ছেন মহানগর খাদ্য পরিদর্শক গোপাল চন্দ্র দাস এবং খাদ্য পরিদর্শক ইব্রাহিম খলিলুল্লাহ। এ কমিটিকে দ্রুত রিপোর্ট জমা দিতে বলা হয়েছে। জেলা প্রশাসন ও র‌্যাবের প্রতিবেদন পাওয়ার পর আরও একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন সিএসডি গোডাউনের ব্যবস্থাপক মাহবুবুর রহমান খান। যদিও চাল পাচারের মামলায় তিনি নিজেও আসামি।
অভিযোগ আছে, সিএসডি’র কর্মকর্তাদের অর্থ না দিলে গোডাউন থেকে চাল উত্তোলনে ডিলারদের হয়রাণির শিকার হতে হয়। লভ্যাংশের ভাগ দিতে হয় জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের দপ্তরের কর্মকর্তা ও কর্মচারিদের। এমনকি সরেজমিনে গেলে পরিদর্শকদেরও একটি নির্দিষ্ট অর্থ দিতে হয়। ফলে ডিলাররাও খোলা বাজারের চাল কালোবাজারে বিক্রির উৎসাহ পায়।  এছাড়া হ্যান্ডলিং শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি নাসির সরদার ও সাধারণ সম্পাদক আলী আসগর সরদারের নেতৃত্বে গড়ে ওঠা শক্তিশালী সি-িকেট পুরো সিএসডি এলাকা নিয়ন্ত্রণ করে। এই চক্রটির বিরুদ্ধে এলাকায় মাদক ও জুয়া ব্যবসা পরিচালনার অভিযোগ রয়েছে। নাসির সরদার নিহত শ্রমিক নেতা নাজেম সরদারের ছেলে।
জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের দপ্তরের সূত্র জানান, ডিও লেটার নিতে জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের দপ্তরের একাধিক বিভাগে ডিলারদের অর্থ দিতে হয়। এর মধ্যে ইউনিয়ন, লেবার বকশিশ, মসজিদ ফান্ড, ব্রীজ স্কেল ও ট্রাক ইউনিয়নের চাঁদা বাবদ ১ হাজার টাকা, এছাড়াও চাহিদাপত্র দেয়া, ডেলিভারি ওর্ডার এবং নগর খাদ্য পরিদর্শক বাবদ ৫শ’ টাকা করে দিতে হয়। এসব দপ্তরে টাকা দিতে না পারলে ডিলারদের চাল দিতে গড়িমশি করা হয়।
তবে এসব অভিযোগ অস্বিকার করেছেন জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক ফরহাদ খোন্দকার। তিনি বলেন, এ ধরনের অভিযোগ কেউ করেননি। অভিযোগ পেলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেয়া হত।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ডিলারের সাথে কথা বলে জানা গেছে, প্রতি দুই টন চাল বিক্রি করে একজন ডিলারের লাভ হয় তিন হাজার টাকা। এরমধ্যে লেবার থেকে শুরু করে কর্মকর্তা পর্যন্ত কমিশন এবং ট্রাক সেলের ব্যয় হয়। খাদ্য বিভাগের ওএমএস ডিলার সমিতির মাধ্যমে এসব টাকা ডিলারদের নিকট থেকে উত্তোলন করে সমভাবে টাকা ভাগ করে দেন বলে সূত্র জানিয়েছে। ডিলার সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইকবাল হোসেন টাকা কমবেশী অনেককেই দিতে হয় বলে স্বীকার করেছেন।
র‌্যাব-৬’র স্পেশাল কোম্পানি কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. এনায়েত হোসেন মান্নান জানান, সিএসডি গোডাউনের অসাধু কর্মকর্তা এবং গুদাম হ্যান্ডলিং শ্রমিক নেতাদের সঙ্গে যোগসাজসে স্থানীয় একটি সিন্ডিকেট দীর্ঘদিন ধরে চাল পাচার করে আসছে। তারা গুদামে খাওয়ার অনুপযোগী, নিম্নমান এবং পচা চাল রেখে ভাল চাল উচ্চমূল্যে বিক্রির উদ্দেশ্যে পাচার করে থাকে। চাল পাচারের ঘটনায় গোডাউন ম্যানেজার ও দু’ গুদাম ইনচার্জসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের খুঁেজ বের করার চেষ্টা চলছে।
উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার রাতে সিএসডি গোডাউন থেকে সরকারি চাল পাচারের খবর পেয়ে র‌্যাবের স্পেশাল কোম্পানি কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. এনায়েত হোসেন মান্নান ও স্কোয়াড কমান্ডার মোঃ নূরুজ্জামানের নেতৃত্বে র‌্যাবের একটি দল অভিযান শুরু করে। বুধবার দুপুরে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেটের উপস্থিতিতে সিএসডি গোডাউনের ১৮, ৩২ ও ২৬ নম্বর গুদাম সিলগালা করা হয়।  অভিযানের খবর পেয়ে ২৬ নম্বর গুদাম ইনচার্জ মো. ইলিয়াস হোসেন হৃদরোগে আক্রান্ত হন।  সিলগালা করা ১৮ নম্বর গুদামে জাহাঙ্গীর হোসেন এবং ৩২ নম্বর গুদাম ইনচার্জ হিসেবে মহসিন আকন দায়িত্বে রয়েছেন।

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4728506আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 1এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com নিউজ রুম।

Email-Cvnayaalo@gmail.com সিভি জমা।

 

 

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET