১২ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, বুধবার, ২৯শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৯শে রমজান, ১৪৪২ হিজরি

শিরোনামঃ-

গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতন

Khorshed Alam Chowdhury

আপডেট টাইম : মে ০৮ ২০১৬, ০২:১৭ | 705 বার পঠিত

13138_b1 নয়া আলো-

চরফ্যাশনে নুর নাহার বেগম নামে এক নারীকে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতনের ঘটনায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। তবে সে ঘটনায় অভিযুক্ত যুবলীগ নেতা কামরুল ইসলাম কাজল রয়েছেন ধরাছোঁয়ার বাইরে। পুলিশের দাবি, নির্যাতনকারী কাজল ঘটনার পরপরই গা-ঢাকা দিয়েছেন। তবে ভোলায় যুবলীগ নেতার সহযোগী জামাল মাঝিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। স্থানীয়দের ভাষ্য, উপজেলা যুবলীগের সদস্য কাজল এলাকায়ই রয়েছেন। এবং তাকে প্রতিনিয়ত দেখাও যাচ্ছে। কিন্তু তিনি প্রভাবশালী হওয়ায় পুলিশ গ্রেপ্তার করছে না। চরফ্যাশন উপজেলার সাবেক নীলকোমল বর্তমান নুরাবাদ ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের নজির মাঝিরহাট এলাকার নজির মাঝির ছেলে যুবলীগ নেতা মো. কামরুল ইসলাম কাজলের (৩০) সঙ্গে প্রায় এক বছর ধরে পার্শ্ববর্তী এলাকার মো. মনিরের স্ত্রী নুর নাহার বেগমের সঙ্গে পরকীয়ার সম্পর্ক চলে আসছিল। সেই বিষয়টি স্বামী মনির টের পেলে নাহারকে তার বাবার বাড়িতে ফেলে রেখে চলে যান। এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে কাজল আর নুর নাহারের পরকীয়া আরও গভীর হয়ে ওঠে।’ এ বিষয়টি এলাকায় জানাজানি হলে কাজল তাকে বিয়ে করবে বলে আশ্বাস দিয়ে বিভিন্ন জায়গায় স্ত্রী হিসেবে পরিচয় দিতেন। এমনকি তাকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ভোলা, বরিশাল ও ঢাকার বিভিন্ন বাসায় রেখে স্বামী-স্ত্রীর মতো রাত কাটিয়েছেন। কিন্তু বধুবার বিয়ের দাবি নিয়ে গেলে কাজল ও তার পরিবারের লোকজন ওই যুবতীর ওপর নির্মম নির্যাতন চালায়। এক পর্যায়ে তাকে বাড়ির পাশে একটি সুপারী গাছের সঙ্গে বেঁধে কয়েক দফা মারধর করে। এতে ওই যুবতী গুরুতর আহত হলে উদ্ধার করে চরফ্যাশন সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। নুর নাহার স্থানীয় মিডিয়াকর্মীদের জানিয়েছে, কাজলের কারণে তার সংসার ভেঙে গেছে। এখন কাজল তাকে বিয়ে না করলে আত্মহত্যা করা ছাড়া কোনো পথ নেই। যে কারণে বাধ্য হয়ে বুধবার তার বাড়িতে বিয়ের দাবি নিয়ে গিয়েছিলেন। কিন্তু কাজল তার ওপর অমানুষিক নির্যাতন চালিয়েছে। তাই তিনি কাজলের বিচার চেয়ে পরদিন বৃহস্পতিবার সংশ্লিষ্ট থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। চরফ্যাশন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. এনামুল জানিয়েছেন, অভিযুক্ত কাজলকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। এদিকে ভোলা জেলা পুলিশ সুপার মো. মনিরুজ্জামান বলছেন, নির্যাতিতার অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা নেয়া হয়েছে। এমনকি অভিযুক্তকে গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে। ঘটনা সংশ্লিষ্ট চরফ্যাশন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. এনামুল জানান, ঘটনার অনুঘটক কাজলের সহযোগী জামাল মাঝিকে নজির মাঝিরহাট এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ওই এলাকার মৃত নজির মাঝির ছেলে জামাল মাঝি নারী নির্যাতন মামলায় দ্বিতীয় নম্বর আসামি। এছাড়া তিনি কাজলের একান্ত সহচর এবং ক্ষমতাসীন যুবলীগের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত।

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4524503আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 5এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com নিউজ রুম।

Email-Cvnayaalo@gmail.com সিভি জমা।

 

 

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET