১৭ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার, ৩রা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৬ই জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি

শিরোনামঃ-
  • হোম
  • রাজনীতি
  • জাতীয় ঐক্য না হলে জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে সম্ভব সবকিছু করবে বিএনপি

জাতীয় ঐক্য না হলে জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে সম্ভব সবকিছু করবে বিএনপি

Khorshed Alam Chowdhury

আপডেট টাইম : জুলাই ১৭ ২০১৬, ০৩:৫৫ | 646 বার পঠিত

FNS16072016N-15নয়া আলো ডেস্ক- জাতীয় ঐক্য না হলে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে বিএনপি সম্ভব সবকিছু করবে বলে জানিয়েছেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান। তিনি বলেছেন, সন্ত্রাসবাদ-উগ্রবাদ মোকাবিলায় সরকারকে সহযোগিতা করার জন্যই বিএনপি জাতীয় ঐক্যের আহ্বান জানিয়েছে। এখন সরকার যদি শর্তারোপ করে সেই প্রস্তাব ফিরিয়ে দিতে চায়, তা পারে। জাতীয় ঐক্য না হলে দেশের জনগণের প্রতি কর্তব্যবোধ থেকে সন্ত্রাস ও উগ্রবাদ প্রতিরোধে বিএনপির পক্ষে যা করা সম্ভব, সবই করবে। এ বিষয়টি এখন গুরুত্বপূর্ণ পর্যায়ে রয়েছে। বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের সঙ্গে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কথা বলছেন, তার ওপরই কর্মসূচি ঘোষণার দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। তিনিই কর্মসূচি ঘোষণা করবেন। রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে গতকাল দুপুরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। জাতীয় ঐক্য গড়তে বিএনপি জামায়াতকে ছাড়বে কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে নজরুল ইসলাম খান পাল্টা প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়ে বলেন, অলটারনেটিভ করার চেষ্টা করছেন কেন? আমরা বলছি জাতীয় ঐক্যের কথা। সেখান আলোচনা যখন শুরু হবে, তখন এটি দেখা যাবে। তিনি বলেন, রাজাকার-স্বৈরাচারদের সঙ্গে যখন সরকার গঠন হয়, এটা নিয়ে তখন আপনারা প্রশ্ন করেন না কেন? নজরুল ইসলাম খান বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন জাতীয় ঐক্যের যে ডাক দিয়েছেন, তা দেশে-বিদেশে প্রশংসিত হয়েছে। কিন্তু সরকারের কয়েকজন মন্ত্রী ও নেতা ‘ব্লেইম গেমের’ আশ্রয় নিয়ে খালেদা জিয়া ও বিএনপিকে দোষারোপ করছেন। এভাবে বিভ্রান্তি ছড়িয়ে জনগণকে হতাশ করা হচ্ছে। তিনি বলেন, সরকার বিরোধী রাজনৈতিক শক্তির সহযোগিতা ফিরিয়ে দিয়ে যে সমস্যার সমাধান করতে পারছে, তাও তো না। কিন্তু ঘটনার পরিমাণ, সংখ্যা এবং গুণগত অবস্থা তো বাড়ছে ক্রমাগত। প্রথমে একজন-দুজন করে বিদেশি নিহত হয়েছেন, এবারে একসঙ্গে ১৮ জন বিদেশি নিহত হয়েছেন। দেশে এমন চরম ক্রান্তিকাল অতীতে কখনও আসেনি। তাই কেবল আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী-প্রশাসন দিয়ে সন্ত্রাসবাদ দমন সম্ভব হয়নি, হবেও না। এ জন্য জাতীয় ঐক্যের বিকল্প নেই। নজরুল ইসলাম খান বলেন, এই ক্রান্তিকালে মুক্তিযুদ্ধের মতো সকলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়া একান্ত জরুরি। এ থেকে উত্তরণে জনগণের ঐক্যের কোনো বিকল্প নেই। সরকার যত দ্রুত এই সত্য মেনে নেবে, তত দ্রুত সঠিক পথে দেশ এগুতে পারবে। কিন্তু সরকার সেই ঐক্যের আহ্বানে সাড়া না দিয়ে চরম দায়িত্বহীনতার পরিচয় দিচ্ছে। সরকার জাতিকে বিভক্ত করে সন্ত্রাস ও উগ্রবাদের পক্ষ নিয়েছে। কার্যত তারা প্রকৃত অপরাধীদের আড়াল করে সন্ত্রাসবাদে উৎসাহ দিচ্ছে। সরকার এই পথ থেকে বেরিয়ে এসে জাতীয় ঐক্য গঠন করলে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হবে এবং দেশ এগিয়ে যাবে। আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি জাতীয় ঐক্য প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব হলে লক্ষ লক্ষ মানুষের রক্তে অর্জিত বাংলাদেশকে সন্ত্রাসবাদ-উগ্রবাদের বিষাক্ত ছোবল থেকে রক্ষা করে বাংলাদেশের উজ্জ্বল ভাবমূর্তি এবং শান্তি সমৃদ্ধি ফিরিয়ে আনা সম্ভব হবে। তিনি বলেন, মধ্যপন্থি, উদার ও জাতীয়তাবাদী গণতান্ত্রিক দল হিসেবে বিএনপি সবসময় সন্ত্রাসবাদ-উগ্রবাদের বিপক্ষে অবস্থান নিয়ে কাজ করছে। বিএনপি সরকারে থাকাকালে সফলভাবে উগ্রবাদ দমনে ব্যবস্থা নিয়েছিল। এর সঙ্গে জড়িত মূল নেতাদের আটক করে বিচার করেছিল এবং সমাজে স্বস্তি ও শান্তি ফিরিয়ে এনেছিল। তিনি বলেন, ঢাকার গুলশানে একটি রেস্তরাঁয় সন্ত্রাসী হামলার ঘটনায় বিশেষ করে এ ঘটনায় ১৮ জন বিদেশি নাগরিক নিহত হওয়ায় পুরো জাতির মাথা হেট হয়ে গেছে। এ ঘটনার পরপরই বিএনপির পক্ষ থেকে দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বিবৃতি দিয়ে ঘটনার নিন্দা জানিয়েছেন এবং দোষী ব্যক্তিদের শাস্তি দাবি করেছেন। সংবাদ সম্মেলন করে অবনতিশীল পরিস্থিতির প্রেক্ষাপটে দল-মত নির্বিশেষে সকল বিভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে তা মোকাবিলা করার আহ্বান জানিয়েছেন। নজরুল ইসলাম খান অভিযোগ করে বলেন, গুলশানের একটি রেস্তরাঁয় সন্ত্রাসী হামলার প্রেক্ষাপটে সন্ত্রাসের জন্য দায়ী অপরাধীদের ধরার নামে সরকার যে গ্রেপ্তার অভিযান শুরু করেছে, সেখানে দেখা যাচ্ছে বিএনপিসহ বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের গণহারে ধরা হচ্ছে। দলীয় সূত্রে ওই ঘটনায় বিএনপি ও দলের অঙ্গসংগঠনের অসংখ্য নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তারের তথ্য থাকার দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা এহেন গণবিরোধী ও নির্বোধ কর্মকাণ্ডের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। এর আগে চট্টগ্রামে পুলিশ কর্মকর্তার স্ত্রীর নৃশংস হত্যাকাণ্ডের পর পরিচালিত অভিযানে সারাদেশে যাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছিল তার মধ্যে শুধু বিএনপি ও এর অঙ্গ দল ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীর সংখ্যা ছিল প্রায় ৩ হাজার। আমরা অত্যন্ত ক্ষোভ ও দুঃখের সঙ্গে বলতে বাধ্য হচ্ছি, পুরো বাংলাদেশ যখন সন্ত্রাসবাদের অজানা আতঙ্কে আতঙ্কিত এবং উগ্রবাদ-সন্ত্রাসবাদের বিষাক্ত ছোবলে জনপদ যখন রক্তে রঞ্জিত, তখন জনসমর্থনহীন সরকার অতীতের মতোই ঘটনার দায় বিরোধী দলের ওপর চাপানোর সর্বনাশা খেলায় মেতে উঠেছে। বিএনপিসহ বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের গণগ্রেপ্তার করছে। এতে অতীতের মতোই প্রকৃত সন্ত্রাসী-অপরাধীরা আড়ালে থেকে যাচ্ছে। একের পর এক সন্ত্রাসী হামলা চালানোর জন্য উৎসাহিত হচ্ছে। এ সময় অবিলম্বে আটক নিরাপরাধ নেতাকর্মীদের মুক্তি ও তাদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিও জানান তিনি। নজরুল ইসলাম খান বলেন, বৃহস্পতিবার রাতে ফ্রান্সের দক্ষিণাঞ্চলের নিস শহরে ঐতিহাসিক বাস্তিল দিবসের উৎসবে সন্ত্রাসী হামলা হয়েছে। ওই ঘটনায় ৮৪ জনের মৃত্যু হয়েছে, আহত হয়েছেন অসংখ্য মানুষ। বিএনপির পক্ষ থেকে আমি এই ন্যক্কারজনক নৃশংস ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। এ ঘটনার মাধ্যমে বিশ্বব্যাপী আতঙ্ক আরো ছড়িয়ে পড়লো। এ নৃশংস ঘটনায় নিহতদের আত্মার শান্তি কামনা, শোকসন্তপ্ত পরিবার, ফ্রান্সের সরকার ও জনগণের প্রতি আন্তরিক সমবেদনা জানাচ্ছি। আশা করছি ফ্রান্সের জনগণ এই শোককে শক্তিতে পরিণত করে সন্ত্রাসবাদবিরোধী লড়াইয়ে জয়ী হবেন। সংবাদ সম্মেলনে দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আহমেদ আযম খান, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, হারুন অর রশিদ, মজিবর রহমান সরোয়ার, সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স ও সহ-দপ্তর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু উপস্থিত ছিলেন।

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4577130আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 2এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com নিউজ রুম।

Email-Cvnayaalo@gmail.com সিভি জমা।

 

 

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET