১৫ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার, ১লা আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৮ই জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

শিরোনামঃ-




দাগনভূঁঞায় এই প্রথম চাষ হচ্ছে ভিনদেশী ‘স্কোয়াশ’

নজরুল ইসলাম চৌধুরী, জেলা করেসপন্ডেন্ট,ফেনী।

আপডেট টাইম : ডিসেম্বর ২৭ ২০১৮, ২২:১৬ | 678 বার পঠিত | প্রিন্ট / ইপেপার প্রিন্ট / ইপেপার

 

কাজী ইফতেখারুল আলম:
দাগনভূঁঞার কৃষক আব্দুল্লাহ আল আমিন বাবলু শীতকালীন মৌসুমী সবজি স্কোয়াশ আবাদ করে এলাকায় তাক লাগিয়ে দিয়েছেন। ভিনদেশী এ ফসল বাংলাদেশের মাটিতে চাষ করে ব্যাপক সফলতা দেখিয়েছেন তিনি। বিদেশী ফসল গ্রামে চাষ করে উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন তিনি। বাবুল জানিয়েছেন, স্কোয়াশ আবাদের সুবিধা হচ্ছে অল্প সময়ের ফসল প্রাপ্তি এবং সাশ্রয়ী উৎপাদন খরচ।

তাছাড়া একবিঘা জমিতে যে পরিমাণ কুমড়া লাগানো যায় তার চেয়ে দ্বিগুণ স্কোয়াশ লাগানো সম্ভব। পূর্ণবয়স্ক একটি স্কোয়াশ গাছ অল্প জায়গা দখল করে।স্কোয়াশ ফুল থেকে শুরু হয় একেকটি গোড়ায় ৮ থেকে ১২টি পর্যন্ত স্কোয়াশ বের হয়। কয়েকদিনের মধ্যেই খাওয়ার উপযোগী হয় এটি। ডগার প্রতিটি পাতার গোড়া দিয়ে স্কোয়াশ বের হয়।

দেশের উচ্চফলনশীল ফসলের চেয়েও কয়েকগুণ বেশি উৎপাদন করে রীতিমত হৈ-চৈ ফেলে দিয়েছেন দাগনভূঁঞা উপজেলার জাঙ্গালীয়া গ্রামের এ কৃষক।
বাবুলের মতে, ২ থেকে ৫ লাখ টাকা ব্যয় করে দেশ ছেড়ে বিদেশে পাড়ি দিচ্ছেন অনেক বেকার যুবক। এসব বেকার যুবক বিদেশে গিয়ে যে অর্থ উপার্জন করে, তার চেয়ে অধিক অর্থ উপার্জন করা যাবে উচ্চ ফলনশীল এই ফসল আবাদ করে।

বাজারে প্রতি কেজি স্কোয়াশ বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকা। স্কোয়াশ দেখতে অনেকটাই শশার মতো আকৃতির দেখতে কালো। উচ্চ ফলনশীল এ জাতের ফসল ভাজি, মাছ ও মাংসে রান্না উভয়ভাবেই খাওয়ার উপযোগী এবং সুস্বাদু। বিশেষ করে চাইনিজ রেস্টুরেন্টে সবজি এবং সালাদ হিসেবে এর ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। ইন্টারনেটে দেখে চট্রগ্রাম থেকে স্কোয়াশ সবজির বীজ সংগ্রহ করে স্হানীয় উপ সহকারি কৃষি কর্মকর্তা মারুফ সাহেবের পরার্মশে ১৫ শতাংশ জমিতে প্রতাপপুরে পরীক্ষামূলকভাবে রোপণ করেন কৃষক বাবুল।

উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা আব্দুল্লাহ আল মারুফ বলেন, কৃষক বাবুলের স্কোয়াশ চাষে সার্বিক সহযোগীতা করে যাচ্ছি। তার দেখে অন্যরাও এটি চাষে উৎসাহী হচ্ছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রাফিউল ইসলাম বলেন স্কোয়াস সবজিটি মুলত ভারতের। অতি পুষ্টিকর, সু-স্বাদু, স্বল্পমেয়াদি, উচ্চ ফলনশীল, লাভ জনক ও শীতকালীন বিদেশী নতুন জাতের সবজি। এটি লাউ গোত্রের সবজি। অন্য ফসলের চেয়ে স্কোয়াস চাষের খরচ অনেক কম লাগে। এটি ফুলের টবেও চাষ করা যায়। স্কোয়াসের বীজ লাগানোর মাত্র ৩০ থেকে ৩৫ দিনের মধ্যে ফুল ধরে, ফল আসে এবং ৭ থেকে ৮ সপ্তাহ পর্যন্ত ফল সংগ্রহ করা যায়। এটি মাছ, মাংসের সঙ্গে রান্না করে এবং সালাদ হিসেবেও খাওয়া যায়। একটু পরিচর্যা করলে অনেক ভালো ফলন পাওয়া যায়।

Please follow and like us:

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৬০১৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com নিউজ রুম।

Email-Cvnayaalo@gmail.com সিভি জমা।

 

 

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET