১৭ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার, ৩রা আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৬ই জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি

শিরোনামঃ-

নাঙ্গলকোটে দ্বিখন্ডিত অজ্ঞাত লাশের পরিচয় মিলেছে

Khorshed Alam Chowdhury

আপডেট টাইম : অক্টোবর ১৪ ২০১৬, ০৬:৩১ | 635 বার পঠিত

1476353515তাজুল ইসলাম-

পুকুরের পানিতে ভাসছিলো মাথা। আর পুকুর পাড়ের পাশের একটি ধান ক্ষেতে পড়ে ছিলো নিথর দেহ। নির্মমভাবে হত্যার পর হতভাগ্য এক স্কুল ছাত্রের মাথা এভাবেই পুকুরে আর মরদেহ ধান ক্ষেতে ফেলে রাখে ঘাতকরা। নিখোঁজ হওয়ার ৫ দিন পর কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে শাহাদাত হোসেন সিফাত (১৫) নামে এক স্কুল ছাত্রের গলাকাটা লাশ এভাবেই উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টার দিকে উপজেলার জোড্ডা ইউনিয়নের কৈরাশ গ্রামের মাহাবুবুল হকের বাড়ির পুকুর থেকে ওই ছাত্রের মাথা এবং পাশেই অবস্থিত একই গ্রামের মান্নান মিয়া ও সফিক মিয়ার ধান ক্ষেত থেকে তার মরদেহটি উদ্ধার করা হয়। সিফাত ওই গ্রামের নুরুল হকের ছেলে। সে স্থানীয় জোড্ডা পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী।

ওই ছাত্রের পরিবার, স্থানীয় এলাকাবাসি ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার জোড্ডা ইউনিয়নের কৈরাশ গ্রামের নুরুল হকের ছেলে ও স্থানীয় জোড্ডা পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী শাহাদাত হোসেন সিফাত গত রোববার (৯ অক্টোবর) বিকেলে খেলা দেখার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয়। এরপর থেকেই ওই স্কুল ছাত্রের কোন সন্ধান পাওয়া যাচ্ছিল না। ওইদিন থেকে শিফাতকে তার সকল আতœীয়-স্বজনসহ বিভিন্ন জায়গায় খোঁজা-খোঁজি করে পরিবারের সদস্যরা। কিন্তু কোথাও কোন হদিস মিলল না সিফাতের। সর্বশেষ গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে ওই গ্রামের মাহাবুবুল হকের বাড়ির পুকুরে সিফাতের গলা কাটা মাথা দেখতে পায় স্থানীয়রা। এর কিছুক্ষণ পরেই পুকুর পাড়ের পাশেই অবস্থিত ওই গ্রামের মান্নান মিয়া ও সফিক মিয়ার ধান ক্ষেতে সিফাতের মরদেহ খুঁজে পায় এলাকাবাসি। লোকমুখে এ ঘটনার খবর পেয়ে শিফাতের পরিবারের সদস্যরা ঘটনাস্থলে ছুঁটে গিয়ে তার লাশ সনাক্ত করেন। এছাড়া পরে খবর পেয়ে নাঙ্গলকোট থানা পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে পৃথক স্থান থেকে ওই ছাত্রের মাথা ও মরদেহ উদ্ধার করে।

এদিকে, সিফাতকে হত্যা করা হয়েছে। পুকুরে মাথা ও ক্ষেতে ছেলের লাশ পাওয়া গেছে এমন খবর পেয়েই বিলাপ শুরু করেন সিফাতের মা হাসিনা আক্তার। তাঁর বিলাপ ও আহাজারিতে ভারি হয়ে উঠে ওই এলাকার আকাশ-বাতাস। বিলাপ করতে করতে বার বার মুর্ছা যাচ্ছেন তিনি। তাকে সান্তনা দেওয়ার ভাষাও হারিয়ে ফেলেছেন বাড়ির লোকেরা। তারাও বিলাপ করছেন সিফাতের জন্য। আর সিফাতের বাবা ছেলে খুনের খবর শুনেই অনেকটা বাকরুদ্ধ। কথা বলার শক্তিও হারিয়ে ফেলেছেন তিনি। বিলাপ করতে করতে সিফাতের মা হাসিনা আক্তার সাংবাদিকদের জানান, গত রোববার বিকালে তার ছেলে কবুতরকে খাবার দিয়ে নতুন জামা-কাপড় পড়ে খেলা দেখার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয়। এরপর থেকেই সে নিখোঁজ। তিনি জানান, আমরা সকল আতœীয়-স্বজন থেকে শুরু করে সম্ভাব্য সকল স্থানে অনেক খোঁজা-খোঁজি করেও সিফাতের কোন সন্ধান পাইনি। আর পাবোই বা কিভাবে ঘাতকেরাতো আমার সন্তানকে নৃশংশভাবে খুন করেছে। তিনি বলেন, যারা আমার ছেলেকে এভাবে মেরেছে তারা মানুষ নয়, জানোয়ার। আমি তাদের ফাঁসি চাই।

ওই স্কুল ছাত্রের বড় ভাই শাফায়েত হোসেন অভিযোগ করে বলেন, তার চাচা জাহাঙ্গীর আলম, হারুনুর রশিদ, ছালেহ আহম্মদ ও ফুফা ইউছুফ মিয়ার পরিবারের সাথে দীর্ঘদিন ধরে জায়গা-জমি নিয়ে আমাদের বিরোধ চলে আসছিলো। গত প্রায় ২০ দিন আগেও তাদের সাথে জমি নিয়ে আমাদের কথা কাটা-কাটি হয়। কথা কাটা-কাটির এক পর্যায়ে তারা আমাদের হুমকি দিয়ে বলেন, জমিতে গেলে আমাদের লাশ ফেলে দেওয়া হবে। তিনি আরও জানান, লোকমুখে শুনে আজ সকালে (গতকাল বৃহস্পতিবার) মাহাবুবুল হকের পুকুরে গিয়ে আমার ভাইয়ের গলাকাটা মাথা ও মান্নান মিয়াদের ধান ক্ষেতে গিয়ে আমার ভাইয়ের লাশ সনাক্ত করি। শাফায়েত হোসেনের ধারণা, জমি নিয়ে বিরোধের জেরে তার চাচারাই সিফাততে হত্যা করে এভাবে লাশ ফেলে গেছে।

তবে এসব অভিযোগকে মিথ্যা ও বানোয়াট দাবি করে অভিযুক্ত জাহাঙ্গীর আলম, ছালেহ আহম্মদ ও হারুনুর রশিদ বলেন, ভাতিজা শাফায়েত ও সিফাতের সাথে আমাদের কোন বিরোধ হয়নি। ভাতিজারা আমাদেরকে দেখলে অনেক সম্মান করতো। সিফাত ছেলে হিসেবে অনেক ভালো। বৃহস্পতিবার সকালে আমরা তার মৃত্যুর খবর পাই। এতে আমরাও শোকাহত।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে নাঙ্গলকোট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো.আইয়ূব জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা যাচ্ছে ৩ থেকে ৪ দিন আগে ওই স্কুল ছাত্রকে হত্যার পর গতকাল (বুধবার) রাতের কোন এক সময় পৃথক স্থানে মাথা ও মরদেহ ফেলে গেছে দুর্বৃত্তরা। তিনি জানান, আজ (গতকাল) সকালে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে ওই ছাত্রের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ (কুমেক) হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করেছে। তিনি আরও জানান, এ ঘটনায় এখনও (গতকাল বিকেল) পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার বা আটক করা সম্ভব হয়নি। তবে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান তিনি।

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4577162আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 0এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com নিউজ রুম।

Email-Cvnayaalo@gmail.com সিভি জমা।

 

 

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET