১৭ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, শুক্রবার, ২রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৯ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি

শিরোনামঃ-

পাইকগাছায় দূর্গাপূজায় জমে উঠেছে কেনাকাটা

প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

আপডেট টাইম : অক্টোবর ০৪ ২০১৬, ১৮:৪৭ | 669 বার পঠিত

04-10-16ইমদাদুল হক, পাইকগাছা ॥-
পাইকগাছায় শেষ মুহুর্তে শারদীয়া দুর্গোৎসবে জমে উঠেছে কেনাকাটা। পূজার আনুষ্ঠানিকতা শুরু হতে এখনো বাকী রয়েছে ২ দিন। কেনাকাটার কাজ সম্পন্ন করতে সবাই ভিড় জমাচ্ছেন বিপনী বিতান গুলোতে। সব চেয়ে বেশি ভিড় পরিলক্ষিত হচ্ছে পোশাকের দোকান গুলোতে।
সনাতন ধর্মালম্বীদের প্রধান বড় ধর্মীয় উৎসব উপলক্ষে এ বছর উপজেলার ১৩৮ মন্ডপে অনুষ্ঠিত হচ্ছে শারদীয়া দুর্গোৎসব। সুন্দর ভাবে উৎসব সম্পন্ন করতে একদিকে যেমন চলছে পূজা মন্ডপের সাজ সজ্জা ও প্রতিমা রঙের কাজ। অনুরূপভাবে সুন্দর পোশাকে উৎসব উপভোগ এবং আত্মীয় স্বজনদের সাথে কুশল বিনিময়ের জন্য শেষ মূহুর্তে সবাই সেরে নিচ্ছেন কেনাকাটার কাজ। এ জন্য পৌর সদর সহ গুরুত্বপূর্ণ স্থান সমূহের বিপনী বিতান গুলোতে কেনাকাটার ধুম পড়েছে। প্রসাধনীর পাশাপাশি চলছে পছন্দের পোশাক কেনাকাটা। দুই ঈদের পর কেনাকাটায় কিছুটা ভাটা পড়লেও আসন্ন শারদীয়া দুর্গোৎসব উপলক্ষে আবারও জমজমাট কেনাবেচা শুরু হয়েছে। ফজলু ক্লথ ষ্টোরের স্বত্তাধিকারী মোঃ ফজলুর রহমান, দীপ্তি ক্লথ স্টোরের স্বত্তাধিকারী অমরেশ মন্ডল ও পাইকগাছা বস্ত্রালয়ের স্বত্তাধিকারী কার্তিক চন্দ্র দেবনাথ জানিয়েছেন, এবারের পূজায় গোলফ্রগ, ফ্লোর টার্চ, অরগান্ডি, থ্রি পিচ, জামদানী শাড়ি, গ্যাস সিল্ক বেশি বিক্রি হয়েছে। তবে লেহাঙ্গা, জর্জেট থ্রি-পিচ, সুতার থ্রি-পিচ বাজারে পর্যাপ্ত না থাকার কারণে ক্রেতাসহ আমরা বিপাকে পড়েছি। শিক্ষার্থী কান্তা রায় জানান, এ বারের পূজায় দেড় হাজার টাকা মূল্যের সেরণী থ্রি-পিচ নিয়েছেন। তবে পছন্দের অনেক পোশাক না পাওয়ায় আমরা হতবাক হয়েছি।

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4719116আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 1এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com নিউজ রুম।

Email-Cvnayaalo@gmail.com সিভি জমা।

 

 

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET