১১ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, মঙ্গলবার, ২৮শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৮শে রমজান, ১৪৪২ হিজরি

শিরোনামঃ-

প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে বান্দরবানে লামায়

Khorshed Alam Chowdhury

আপডেট টাইম : জুলাই ২১ ২০১৬, ১৪:২২ | 655 বার পঠিত

lama lamaমোঃ জাহিদ হাসান,বান্দরবান জেলা প্রতিনিধি:

পাহাড়ি-বাঙ্গালী জনগোষ্ঠী, উচুঁ-নিচু রাস্তা, বেঁকে যাওয়া মাতামুহুরী নদী, প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের সম্পদের

অনিন্দ্য নিকেতন লীলাভূমি অপার সম্ভাবনা আর দর্শনীয় স্থানের নাম লামা উপজেলা।

এ অঞ্চলের পিছিয়ে পড়া সকল গোত্রের মানুষের ভাগ্যোন্নোয়নের লক্ষ্যে ১৯৮১ সালের ১৮ এপ্রিল উপজেলাটি মহকুমা শহর নামে পরিচয় লাভ করে। আবহমান কাল থেকে জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে শান্তি পূর্ণ সহাবস্থান এ উপজেলায়। লামা উপজেলায় রয়েছে সাতটি ইউনিয়ন, ১টি পৌরসভা, ১৮টি মৌজা এবং ৩৫৯টি গ্রাম। এর আয়তন ৬৭১.৮৪ বর্গ কিলোমিটার। অধিকাংশ ভূমিই পাহাড় ও বনভূমির অন্তর্ভুক্ত। বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠীর সভ্যতা ও সংস্কৃতিতে উপজেলাটি রূপান্তরিত হয়েছে এক নৈসর্গিক সৌন্দর্যের লীলাভূমিতে। ধারণা করা হয় পার্বত্য অঞ্চলের অবস্থিত মাতামুহুরী নদীর ভাটি অঞ্চলে লামের খালের নাম হতেই লামা উপজেলা নামের উৎপত্তি।

এই উপজেলায় দেখার মত দৃর্শ্য রয়েছে পর্যটন কেন্দ্র মিরিঞ্জা আর পাহাড়ের মাঝখানে বেঁকে যাওয়া মাতামুহুরী নদী। পর্যটনটি ফাঁসিয়াখালী- লামা-আলীকদম সড়কে পাশে অবস্থিত। এটি সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে প্রায় দেড় হাজার ফুট উঁচুতে অবস্থিত। এখানে রয়েছে টাইটানিক নামে একটি পাহাড়, সেখান থেকে দেখা মিলে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের। মিরিঞ্জা পর্যটন কেন্দ্র প্রায় ১ হাজার ফুট নিচুতে রয়েছে একটি ঝরণা। বান্দরবান জেলার বৃহত্তর উপজেলা লামা

শহর থেকে সাড়ে ৭কি.মি দূরে রিরিঞ্জা পাহাড়ে অবস্থিত পর্যটন মিরিঞ্জা।

সমতল ভূমি থেকে প্রায় ২২শত ফুট উচ্চতায় আবস্থিত মিরিঞ্জা। পাহাড় আর মেঘের মিলনের অপরুপ দৃশ্য দেখা যাবে এখানে। প্রবেশ মূল্য জনপ্রতি ২০ টাকা। পিকনিকের রান্না করার সুযোগ রয়েছে। প্রায় ৩৩একর জায়গায় নির্মিত পর্যটন মিরিঞ্জা সহজেই সকলের মন কেড়ে নেবে। চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের চকরিয়া থেকে জীপ, বাস ও প্রাইভেট গাড়ীতে করে আসা যাবে। দূরত্ব ১৭ কি.মি। চকরিয়া হতে মিরিঞ্জা পর্যটনের ভাড়া ৪৫-৫০ টাকা। রাতে থাকার সুব্যবস্থা না থাকায় সন্ধ্যার মধ্যে ফিরে যাওয়ার প্রস্তুতি থাকলে ভাল। তবে লামা শহরে মাঝারি ধরনের হোটেল রয়েছে।প্রতিরুমের ভাড়া পড়বে ৩শত থেকে ৮শত টাকা পর্যন্ত। ১১টি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর বসবাস স্থল লামা যে কোন ভ্রমণ পিপাসু মানুষের মন কাঁড়বে।

বেঁকে যাওয়া পাহাড়ের মাঝখান হতে বয়ে যাওয়া মাতামুহুরীর নদীর অববাহিকা ও মনোরম দৃর্শ্য উপভোগ করার জন্য। লামা শহর হতে টমটম বা রিক্সা করে যেতে হবে।

আর এ ঐতিয্যবাহী টমটমে চড়ার মজাটাও ছাড়তে ইচ্ছুক না দর্শনার্থীরা। তাই প্রতিনিয়তই পর্যটকরা আসছেন এসৌন্দর্যের লীলাভূমিতে।

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4522403আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 4এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com নিউজ রুম।

Email-Cvnayaalo@gmail.com সিভি জমা।

 

 

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET