৪ঠা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার, ১৯শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৯শে রজব, ১৪৪২ হিজরি

শিরোনামঃ-

বরগুনায় নৌবাহিনী সদস্যর রহস্যজনক মৃত্যু

Khorshed Alam Chowdhury

আপডেট টাইম : মে ১৭ ২০১৭, ১৩:৫৫ | 671 বার পঠিত

মোঃ মিজানুর রহমান সুমন ,বরগুনা প্রতিনিধিঃ-
বরগুনায় জহিরুল ইসলাম রুবেল (২২) নামে এক নৌবাহিনী সদস্যর রহস্যজনক মৃত্যু । ঝুলন্ত মরদেহ উদ্বার করেছে স্থানীয়রা। মঙ্গলবার বেলা ২:৩০ টার সময় বরগুনা সদর উপজেলার ১নং বদরখালী ইউনিয়নের কুমড়াখালী গ্রামের মোঃ দুলাল হাওলাদারের বাড়ি থেকে তার মরদেহ উদ্বার করা হয়। তথ্য অনুসন্ধানে জানা যায় , নিহত রুবেল এর বাবা আঃ রব সিকদার সাংবাদিকদের বলেন ,আমার ছেলে ২ বছর যাবত বাংলাদেশ নৌবাহিনীতে কর্মরত থাকা কালীন সময় ১০ দিনের ছুটিতে বাড়িতে আসে , ছুটির ৪ দিন অতিবাহিত হওয়ার পরের দিন মঙ্গলবার দুপুর বেলা আমার বাড়িতে নাতীর ক্ষতনা অনুষ্ঠান চলছিলো এরই মধ্যে দুপুর ১:৩০ টার সময় আমার বশত ঘরের সামনে এসে রাজ্জাক সিকদারের ছেলে সোহেল সিকদার (২০) রুবেলকে ঢেকে নিয়ে যায়। পুর্ব শক্রতার জেরধরে রাজ্জাক সিকদার (৫৫) পিং মৃত্যু: গয়জদ্দিন সিকদার , সোহেল সিকদার (২০) পিং রাজ্জাক সিকদার , মোঃ মনির আকন (৪০) পিং খালেক আকন , জুবায়ের ওরফে হিমু (৩৩) পিং মৃত্যু: হোসেন সিকদার , রিয়াজ (৩৮) পিং হযরত আলী খান , মোসাঃ লুতফা (৩৭) স্বামী হুমায়ুন কবির , সহ আরোও ৫/৬ জন আমার ছেলেকে বাড়ির পার্শবতী মোসলেম আলীর পুএ দুলাল হাওলাদারের ঘরে কোন লোকজন না থাকায় , খালিঘর পেয়ে আমার ছেলেকে মেরে ঘরের বাড়ান্দার মাডামের সাথে ওরনা পেছিয়ে ঝুলিয়ে রাখে। নিহতের বাবা আরোও বলেন , অভিযুক্ত কারিরা বিভিন্ন সময় আমাকে সহ আমার পরিবারকে প্রান নাশ করিবে আমার ছেলেকে খুন করে লাশ গুম করিবে বলে হুমকী দিয়ে আশিত। পরবর্তীতে আমি প্রান নাশের ভয়ে গত ১৬/১১/২০০৬ইং তারিখ বরগুনা কোর্টে ১০৭ ধারা মামলা করি। সেই পুর্বের হুমকীর প্রতিফলন ঘটালো তারা , আমার ছেলের লাশ নামানোর পর খালেক আকনের ছেলে মনির আকন আমার বশত ঘর থেকে রুবেল এর ব্যবহারিক ব্যাগ ও ব্যাগে থাকা এ টি এম কার্ড ও টাকাসহ প্রয়োজনী কাগজ পএ নিয়া যায়। এ ব্যাপারে দুলাল মিয়া বলেন, আমি কাট মিস্তীর কাজ করতে গিয়ে ছিলাম আমার স্ত্্রী ও মেয়ে লিমা , লামিয়া , মারিয়া , তারা বেড়াতে গিয়েছিলো নানা বাড়ি , সেখান থেকে বাড়িতে এসে ঘরের দরজা খুলতে গিয়ে দেখতে পায় আমার ঘরের বারান্দার মাডামের সাথে রুবেলের ঝুলন্ত লাশ। মেয়ে লিমা ডাক চিৎকার দিলে স্থানীয় রফিকুল ইসলাম (বশির) পিং আঃ হক সিকদার , আসাদুল পিং জালাল সিকদার ও আরও অনেকে লাশটি নামিয়ে তাৎক্ষনিক বরগুনা জেনারেল হাসপাতাল নিয়ে গেলে হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাক্টার জহিরুল ইসলাম রুবেলের মৃত্যু বলে সনাক্ত করেন। বরগুনা সদর থানার পুলিশ হাসপাতাল থেকে লাশটি ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠান। লাশ পোষমাডাম শেষে তার নিজ পারিবাড়িক কবরস্থানে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাপন সম্পান্ন করেন। এ ব্যাপারে নিহতদের পরিবার থেকে জানা যায় , অভিযুক্তদের বিরুদ্বে কোর্টে মামলা হয়েছে।

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4397653আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 11এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET