১লা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার, ১৭ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২১শে জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি

শিরোনামঃ-
  • হোম
  • বিশেষ প্রতিবেদন
  • বান্দরবানের লামা উপজেলার লামা সদর ইউনিয়নের এম হোসেন পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যাওয়া আসা করছে ছাত্র-ছাত্রীরা

বান্দরবানের লামা উপজেলার লামা সদর ইউনিয়নের এম হোসেন পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যাওয়া আসা করছে ছাত্র-ছাত্রীরা

Khorshed Alam Chowdhury

আপডেট টাইম : সেপ্টেম্বর ২৬ ২০১৬, ১৮:৩৭ | 642 বার পঠিত

14470950_1752969698288385_116440648_nজাহিদ হাসান,বান্দরবান জেলা প্রতিনিধি: বান্দরবানের লামা উপজেলার একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নাম এম. হোসেন পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। উপজেলা সদর থেকে প্রায় ১০কিলোমিটার দুর্গম পাহাড়ি পোপা এলাকায় বিদ্যালয়টির অবস্থান। এ বিদ্যালয়ে যেতে হলে পোপা নামক একটি পাহাড়ি খাল পাড়ি দিতে হয়। তাই ভর্তিচ্ছু শিশুদেরকে আগেই শিখে নিতে হয় সাঁতার। কারণ ১২ মাস পানিতে ভরপুর থাকে পাহাড়ি ওই খালটি। জানা গেছে, ১৯৯৪ সালের ১ জানুয়ারি এলাকার কয়েকজন শিক্ষানুরাগি এম হোসেন পাড়া রেজি: বেসরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা করেন। পরবর্তীতে ২০১৩ সালে বর্তমান সরকার বিদ্যালয়টি জতীয়করণ করে। এ বিদ্যালয় ১৬৬ জন ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী ও বাঙ্গালি শিক্ষার্থী অধ্যয়নরত। এটি লামা সদর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডে স্থাপিত হলেও পাশের রুপসীপাড়া ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের ছিচাখইন পাড়ার প্রায় অর্ধ শতাধিক শিক্ষার্থী রয়েছে। তবে ২৯৭নং পোপা মৌজার খাল দ্বারা বিভাজিত লামা সদর-রুপসীপাড়া ইউনিয়নটি। পাহাড় থেকে নেমে আসা পানির কারণে পোপা খালটি প্রায় সময় ভরপুর থাকে। পাহাড়ি খাল হওয়ায় খালটিতে স্রোতের মাত্রাও থাকে বেশি। তাছাড়া বর্ষা মৌসুমে এমনিতেই খালটিতে প্রবল স্রোতসহ পানি ভরপুর থাকায় শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয়ে যাওয়া আসা প্রায় অসম্ভব হয়ে পড়ে। এতে করে বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীর উপস্থিতি অনেকাংশে কমে যায়। স্থানীয় ইউপি সদস্য আবুল কাশেম বলেন, পোপা খাল পারাপারের কোন মাধ্যম না থাকায় কোমলমতি শিশুদের শেষ অবলম্বন হচ্ছে সাঁতার। সাঁতরিয়েই খাল পাড়ি দিয়ে বিদ্যালয়ে যেতে হয়। সাঁতার না জানলে খালের ওপাড় থেকে বিদ্যালয়ে যাওয়া যায় না। তাই বিদ্যালয়ে ভর্তির আগেই বিদ্যালয় গমনেচ্ছু শিশুদের সাঁতার শিখতে হয়। এলাকাবাসী মনে করেন, ছিচাখইন পাড়া বসবাসকারি বাসিন্দা ও কোমলতি শিশুদের মৃত্যু ঝুঁকি লাঘবের জন্য পোপা খালের উপর একটি ছোট ব্রিজ নির্মাণ করা প্রয়োজন। বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণীর ছাত্র মংহ্লাথুই, উছাইমং ও এছিউ মার্মা জানায়, শুষ্ক মৌসুমে কোন মতে সাঁতরিয়ে খাল পাড়ি দিয়ে বিদ্যালয়ে যাওয়া গেলেও বর্ষা মৌসুমে স্রোতের গতি বেশি হওয়ায় বিদ্যালয়ে যাওয়া যায় না। পোপা খালের ওপর একটি ব্রিজ না থাকায অর্ধশাতাধিক শিক্ষার্থীকে জীবনের ঝুঁকি নিযে বিদ্যালয় গমনের সত্যতা নিশ্চিত করে এম. হোসেন পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক এম. জিয়াবুল হক বলেন, কোমলমতি শিশু ও স্থানীয় জনসাধারণের কথা চিন্তা করে পোপা খালের উপর একটি ব্রিজ নির্মাণ করা প্রয়োজন। এতে কোমলমতি শিশুদের দুর্ভোগ লাঘবসহ এলাকায় উন্নয়নের ছোঁয়া লাগবে।

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4659913আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 8এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com নিউজ রুম।

Email-Cvnayaalo@gmail.com সিভি জমা।

 

 

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET