২০শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, বুধবার, ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৩ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৩ হিজরি

শিরোনামঃ-
  • হোম
  • পাঁচ মিশালী
  • ব্রাহ্মণবাড়িয়া বাঞ্ছারামপুরে ৩ বছর বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত, বেতন উত্তোলন চলছে

ব্রাহ্মণবাড়িয়া বাঞ্ছারামপুরে ৩ বছর বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত, বেতন উত্তোলন চলছে

Khorshed Alam Chowdhury

আপডেট টাইম : আগস্ট ১৯ ২০১৬, ০৩:৪৫ | 690 বার পঠিত

মোঃ আক্তারুজ্জামান, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রতিনিধি : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর উপজেলার দরিকান্দি পশ্চিম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা তোহরা খাতুন ২০১৩ সালের ১ সেপ্টেম্বর থেকে বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত রয়েছেন। কিন্তু বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত থাকলেও শিক্ষা কর্মকর্তাকে ম্যানেজ করে প্রতিমাসেই বেতন উত্তোলন করছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষিকার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বুধবার (১৭ আগস্ট) ওই বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি সাব্বির আহমেদ সুবীর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। লিখিত অভিযোগ থেকে জানা যায়, সহকারী শিক্ষিকা হিসেবে তোহরা খাতুন ২০১১ সালের ১৩ অক্টোবর যোগদান করেন। এরপর প্রায় দুই বছর যাবৎ বিদ্যালয়ে নিয়মিত আসা- যাওয়া করেন। কিন্তু গত ২০১৩ সালের ১ সেপ্টেম্বর থেকে আর বিদ্যালয়ে আসছেন না। বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মো. আল হেলাল বাংলানিউজকে জানান, তোহরা খাতুন গত প্রায় তিন বছর ধরে বিদ্যালয়ে আসেন না। হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর নেই। তারপরও উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয়কে ম্যানেজ করে বেতন তুলে নিচ্ছেন। তিনি উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে একাধিকবার বিষয়টি ‍জানালেও কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। এ বিষয়ে অভিযুক্ত সহকারী শিক্ষিকা তোহরা খাতুন আমাদের কে বলেন, স্কুলে অনুপস্থিত থাকার বিষয়ে দরিকান্দি এলাকাবাসী আমার বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দিয়েছিল। এরপর ২০১৩ সালে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে ডেপুটেশন অনুমোদন করেছি। এখন পাশের ছয়ফুল্লাকান্দি ইউনিয়নের পাড়াতলী গ্রামের বিদ্যালয়ে ডেপুটেশনে রয়েছি। যোগাযোগ করা হলে বাঞ্ছারামপুর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. নওশাদ মাহমুদ বলেন, তোহরা খাতুনের অনুপস্থিতির বিষয়টি আমার জানা আছে। তিনি ডেপুটেশনে নেই। বিশেষ তদবিরের কারণে তাকে পাড়াতলী পূর্ব সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ক্লাশ নেওয়ার সুযোগ করে দেওয়া হয়েছে। তবে ‘বিশেষ তদবির’ এর বিষয়টি তিনি খোলাসা করতে রাজি হননি। এ বিষয়ে বাঞ্ছারামপুরের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ শওকত ওসমান সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, এ বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি সহকারী কমিশনার ভূমিকে দূত তদন্ত করে ঘটনার সত্যতা জানানোর জন্য নির্দেশ প্রদান করেছি।

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4756739আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 7এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com নিউজ রুম।

Email-Cvnayaalo@gmail.com সিভি জমা।

 

 

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET