২৫শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার, ১০ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৪ই জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি

শিরোনামঃ-

যাতায়াতের সুব্যবস্থা না থাকায় ব্যাহত হচ্ছে ভেড়ামারার হ্যাচারি ব্যবসা

Khorshed Alam Chowdhury

আপডেট টাইম : সেপ্টেম্বর ১০ ২০১৬, ২০:৩২ | 654 বার পঠিত

14302988_1787407411545028_1537234677_nমো.নাজমুল হাসান নাহিদ কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি।।। কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা উপজেলার চাঁদগ্রাম ইউনিয়নের বামনপাড়া গ্রামে স্থাপিত ‘শাহিন পোল্ট্রি হ্যাচারি’ ব্রয়লার ও সোনালী বাচ্চা উৎপাদনের ক্ষেত্রে এবং বাজারজাত করন করে অভাবনীয় সাফল্য অর্জন করেছে। পোল্ট্রি হ্যাচারীর মালিক শাহিনুর রহমান শাহিন ব্যক্তিগত উদ্যোগে ১৯৯১ সালে মাত্র ৪০টি কক মুরগি দিয়ে পোল্ট্রি খামার ব্যবসা এবং ২০০৬ সালে হ্যাচারির কার্যক্রম শুরু করেন। শাহিনুর রহমান জানান, প্রথমে ৪০ টি কক মুরগি দিয়ে খামার ব্যবসা শুরু করি। তখন মানুষ মুরগি খেতে চাইতো না। আমি আমার দুই হাতে দুটি মুরগি নিয়ে বাজারে বাজারে বিক্রি করে বেড়াতাম। পাশাপাশি মানুষকে ফার্মের মুরগি খাওয়ানোর জন্য নানা উপায়ে উৎসাহিত করতাম। কিন্তু তারা বলত ফার্মের মুরগিতে এক প্রকার গন্ধ লাগে। তারপর থেকে আমি লেয়ার মুরগি পালনের কার্যক্রম শুরু করি। এরপর ফিডের ব্যবসা শুরু করে অনেক বেকার যুবককে পোল্ট্রি ফার্ম তৈরী এবং উপজেলা প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের সহযোগিতায় খামার গুলোকে নিজেই তদারকি করতে থাকি। বিজ্ঞান সম্মত উপায়ে প্রথম থেকে নিজেই খাদ্য প্রস্তুত করে তা পরিবেশন করে আসছি। কিন্তু খাদ্য ও ঔষধের মূল্য বেশি, সরকারি ভেটেনারি ডাক্তারদের অভাব, যাতায়াত এর জন্য দুর্লভ রাস্তা, সঠিক রোগ নির্ণয়, ও সরকারি ভ্যাকসিনের অভাব সহ বিদ্যুৎ সমস্যা ও কম সুদে ঋণ না পাওয়া এগুলোর কারনে পোল্ট্রি ফার্মের ব্যবসার ক্ষেত্রে বাধা দেখা দেয়। এতদস্বত্ত্বেও চাকরি নামক সোনার হরিণের পিছনে না ঘুরে পোল্ট্রি খামারের ব্যবসাকে কিভাবে স্বাবলম্বী করা যায় সেক্ষেত্রে নিরলস ভাবে দিন রাত পরিশ্রম করতে থাকে দেশের সর্বোচ্চ ডিগ্রী ধারনকারী মেধাবী এই ছাত্র শাহিনুর রহমান শাহিন। এতে একদিকে যেমন বেকারত্ব ঘুচবে তেমনি আর্থিক ভাবে লাভবান হয়ে দেশের আর্থ সামাজিক উন্নয়নে ব্যাপক ভুমিকা রাখবে এই শাহিন পোল্ট্রি হ্যাচারী। তিনি শিক্ষিত বেকার যুবকদের এই ব্যবসার প্রতি আগ্রহ জানিয়ে বলেন, এই পোল্টি হ্যাচারীর ব্যবসা করে বেকার সমস্যা দুর করে নিজের ও দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে অগ্রণী ভূমিকা রাখা সম্ভব। ভেড়ামারা শহর থেকে মাত্র এক কিলোমিটার দুরে অবস্থিত এই শাহিন পোল্ট্রি হ্যাচারী। কিন্তু যাতায়াতের জন্য ভাল রাস্তা না থাকায় প্রায় ৫ কিলোমিটার এলাকা ঘুরে গ্রামের মেঠোপথ ধরে খানা খন্দুকে ভরা রাস্তা ব্যবহার করে পৌঁছাতে হয় শাহিন পোল্ট্রি হ্যাচারীতে। হ্যাচরীরতে যাতায়াতের জন্য সংযোগ রাস্তাটির নির্মানের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশুহস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এই হ্যাচারী ব্যবসায়ী। রাস্তা না থাকায় উৎপাদিত বাচ্চা এবং বাইরে থেকে ক্রেতাগণরা যাতায়াতের সুব্যবস্থা না থাকায় বাচ্চা বহন করে নিয়ে যাওয়া দুর্লভ বিধায় অনেকেই এই শাহিন পোল্ট্রি হ্যাচারী থেকে বাচ্চা ক্রয়ের ক্ষেত্রে মুখ ফিরেয়ে নিচ্ছে। আগামীতে পোল্ট্রি হ্যাচারীর পাশাপাশি একটি ফিড মিল ও পশু ক্লিনিক স্থাপন করে হ্যচারীটিকে আরোও বেশি প্রসারিত করতে চাই এই ফার্ম কর্তৃপক্ষ। তাই অনতিবিলম্বে এই এলাকার বেকার ছেলেদের আত্মকর্মসংস্থানের সুযোগ করে দিয়ে ফার্মের যাতায়াতের জন্য একটি রাস্তা তৈরী অতিব জরুরী হয়ে পড়েছে। ইতিমধ্যে শাহিন পোল্ট্রি হ্যাচারীর দিনদিন সাফল্য দেখে ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার শান্তি মণি চাকমা, ভেড়ামারা থানার অফিসার ইনচার্জ নুর হোসেন খন্দকার, চাঁদগ্রাম ইউপির চেয়ারম্যান আব্দুল হাফিজ তপন, প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা আনোয়ারুল ইসলাম সহ গন্যমান্য অনেকেই সরোজমিনে ফার্মটি পরিদর্শন শেষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের আশ্বাস জানিয়েছেন। সেখানকার সকলেই মনে করেন সঠিক পদ্ধতিতে পোল্ট্রি খামার করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন শাহিন পোল্ট্রি হ্যাচারীর মালিক শাহিনুর রহমান শাহিন। তার দেখাদেখি এলাকার বেকার যুবকদের মধ্যে পোল্ট্রি খামারের ব্যবসা ইতিমধ্যেই অনেকেই শুরু করেছে।

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4645655আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 6এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com নিউজ রুম।

Email-Cvnayaalo@gmail.com সিভি জমা।

 

 

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET