৩১শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার, ১৬ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২০শে জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি

শিরোনামঃ-
  • হোম
  • রাজনীতি
  • ‘রাজনৈতিক প্রতিহিংসা থেকে জিয়ার পদক প্রত্যাহার’

‘রাজনৈতিক প্রতিহিংসা থেকে জিয়ার পদক প্রত্যাহার’

Khorshed Alam Chowdhury

আপডেট টাইম : সেপ্টেম্বর ০৯ ২০১৬, ০২:০৮ | 643 বার পঠিত

151963_332নয়া আলো ডেস্ক- দলের প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের স্বাধীনতাপদক প্রত্যাহারের প্রতিবাদে দুইদিনের বিক্ষোভ কর্মসূচি দিয়েছে বিএনপি। আজ ঢাকায় ও আগামীকাল সারা দেশে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সমাবেশ করবে দলটি। ঢাকার কেন্দ্রীয় কর্মসূচিটি অনুষ্ঠিত হবে জাতীয় প্রেস ক্লাবে। গতকাল দুপুরে দলের নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর একথা বলেন। জিয়াউর রহমানের পদক সরানোকে বাংলাদেশের রাজনৈতিক ইতিহাসের নিকৃষ্টতম সিদ্ধান্ত আখ্যা দিয়ে বিএনপি মহাসচিব বলেন, এই সিদ্ধান্ত শুধু সংকীর্ণতার পরিচয় নয়, বাংলাদেশের রাজনীতিতে নিকৃষ্টতম একটা উদাহরণ। এই সিদ্ধান্ত দেশের রাজনীতিতে বিভক্তি আরো বাড়াবে। রাজনীতিকে আরো সংকটময় করে তুলবে। সরকারের এই সিদ্ধান্ত প্রতিহিংসাপরায়ণ, ঔদ্ধত্যপূর্ণ ও গণবিচ্ছিন্ন। এই সিদ্ধান্ত রাজনৈতিক প্রতিহিংসাপ্রসূত। মুক্তিযুদ্ধে জিয়ার অবদান উল্লেখ করে তিনি বলেন, যারা জিয়াউর রহমানের পদক কেড়ে নিচ্ছে, তারা মূলত স্বাধীনতাকে অস্বীকার করছে। মুক্তিযুদ্ধে জিয়াউর রহমানের অবদান অস্বীকার করার কোনো সুযোগ নেই। মুক্তিযুদ্ধের সময় থেকেই জিয়া একটি নাম, একটি কিংবদন্তি, একটি স্বপ্ন। এই সিদ্ধান্তে শুধু জিয়াউর রহমানকে হেয় করা হচ্ছে না, স্বাধীনতা সংগ্রামে যারা অসাধারণ অবদান রেখেছেন তাদের সকলের জন্য এটি চরম অবমাননাকর। ফলে স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে পদকপ্রাপ্ত বরেণ্য ব্যক্তিবর্গকে অবমাননা করা হচ্ছে। সরকার এই ধরনের সিদ্ধান্ত নিয়ে প্রমাণ করলো যে, সত্যিকার মুক্তিযুদ্ধের সঙ্গে তাদের সম্পর্ক ছিল না। এর জন্য আমরা তীব্র নিন্দা, ধিক্কার ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। সেই সঙ্গে পদক যথাস্থানে স্থাপন করার আহ্বান জানাচ্ছি। তিনি বলেন, ?বিচারপতি খায়রুল হকের একটি রায়ের অবজারভেশন থেকে পুরো বাংলাদেশের রাজনৈতিক ও ঐতিহাসিক চিত্র বদলে দিচ্ছে আওয়ামী লীগের এই অনৈতিক সরকার। শহীদ জিয়া সামরিক অভ্যুত্থান ঘটাননি। ১৯৭৫ সালে সামরিক অভ্যুত্থান ঘটিয়েছিলো আওয়ামী লীগ নেতা খন্দকার মোশ্‌তাক। তিনি বলেন, স্বাধীনতা যুদ্ধে যারা জিয়ার অবদানকে অস্বীকার করে শুধু আদালতের রায়ের বিকৃত ব্যাখ্যা করে তার পদক সরিয়ে ফেলে, মাজার সরিয়ে ফেলতে চায়; তারাই স্বাধীনতাবিরোধী। আদালতের রায়ের অপব্যাখ্যা দিয়ে ইতিহাস নির্ধারণ করা যায় না। সত্যের ওপর ভিত্তি করেই কালজয়ী ইতিহাস রচিত হয়। আওয়ামী লীগ সরকার ইতিহাস বিকৃত করছে অভিযোগ করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, আওয়ামী লীগের অনৈতিক সরকার শুধু ইতিহাস বিকৃতই করছে না, তাদের নিজেদের স্বার্থে দেশের সকল স্থিতিশীলতা ধ্বংস করে স্বেচ্ছাচারিতার চরম নজির স্থাপন করে ভিন্ন রংয়ে একদলীয় শাসন চাপিয়ে দিচ্ছে জনগণের ওপর। বহুমত, বহুপথ ও মুক্তচিন্তাকে কবর দিয়ে ফ্যাসিবাদী একনায়কতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করছে। বিএনপি মহাসচিব বলেন, আওয়ামী লীগ আজীবন ক্ষমতায় থাকার জন্য স্বৈরাচারী একনায়কতান্ত্রিক সরকারগুলোর মতোই অবৈধভাবে ক্ষমতার অপব্যবহার করে চলেছে। যদি পঞ্চম সংশোধনী অবৈধ হয়, তাহলে পঞ্চদশ সংশোধনীর পূর্বে সকল সরকারের সকল কার্যকলাপ কী অবৈধ হয় না? পঞ্চম সংশোধনীর বলেই ১৯৮২ সালে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থী বিচারপতি আবদুস সাত্তারের বিপক্ষে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন জোটের প্রার্থী ছিলেন বর্তমানে গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেন। সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদিন, আবদুল আউয়াল মিন্টু, ডা. জাহিদ হোসেন, আহমেদ আজম খান, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স ও ছাত্রদল সভাপতি রাজীব আহসান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। এদিকে জাতীয় জাদুঘর থেকে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের স্বাধীনতাপদক সরানোয় নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল। গতকাল গণমাধ্যমে পাঠানো এক বার্তায় সংগঠনটির ছাত্রদল সভাপতি রাজিব আহসান ও সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান এ নিন্দা জানান। তারা বলেন, সরকার নামধারী একটি গোষ্ঠী কতটা বিদ্বেষপূর্ণ আর পরশ্রীকাতর হলে দেশের মহান স্বাধীনতার ঘোষক আর জননন্দিত প্রেসিডেন্টের পদক নিয়ে এতটা কুরুচিপূর্ণ আচরণ করতে পারে। এই সরকার বর্তমানে দেশের মতো স্বাধীনতাটাকেও তাদের পৈতৃক সম্পত্তি বানিয়ে নিয়েছে। তাদের দল করলে মুক্তিযোদ্ধা আর অন্য দল করলে তুমি কেউ না-এই নীতি অনুসরণ করে চলছে। কিন্তু ইতিহাস কখনো ভুল করে না। এই অবৈধ সরকারের হিংসাত্মক কর্মকাণ্ডের বিচার ইতিহাসের নিক্তিতে একদিন ঠিকই হবে। তারা বলেন, প্রশাসন আর ক্ষমতার বলে এই অবৈধ সরকার ইচ্ছেমতো দেশ আর স্বাধীনতার ইতিহাস নিয়ে যাচ্ছেতাই করছে। কিন্তু এসব করে তারা কোনোভাবেই পার পাবে না। এসব কর্মকাণ্ডের জন্য এই দেশের মাটিতে একদিন তাদেরও বিচার হবে। অবিলম্বে সরকারকে এসব বিতর্কিত কর্মকাণ্ড বন্ধ করার আহ্বান জানিয়েছে ছাত্রদল।

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4657958আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 14এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com নিউজ রুম।

Email-Cvnayaalo@gmail.com সিভি জমা।

 

 

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET