২৮শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার, ১৫ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৫ই রজব, ১৪৪২ হিজরি

শিরোনামঃ-
  • হোম
  • সকল সংবাদ
  • রাজশাহীতে মানা হচ্ছে না বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রীর দেওয়া প্রতিশ্রুতি

রাজশাহীতে মানা হচ্ছে না বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রীর দেওয়া প্রতিশ্রুতি

হুমায়ন আরাফাত, আশুলিয়া করেসপন্ডেন্ট।

আপডেট টাইম : জুন ১৪ ২০১৭, ১৯:২৬ | 619 বার পঠিত

নাজিম হাসান,রাজশাহী:

পবিত্র রমজানে বিদ্যুৎ পরিস্থিতি সম্পূর্ণ স্বাভাবিক থাকবে। এ জন্য প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। গত ২৫ মে বৃহস্পতিবার বিকেলে বিদ্যুৎ ভবনে এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ এ কথাগুলো বলেন। যা বাস্তবায়নে বাস্তব রূপ না পেয়ে কথায় সীমাবদ্ধ রয়েছে। বাস্তবে চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন রাজশাহীর বাঘা উপজেলার ধর্মপ্রাণ মুসল্লিগণ। এখানে মানা হচ্ছে না বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রীর দেওয়া প্রতিশ্রুতি। এমন কি ইফতার, তারাবি ও সেহরির সময়েও বাঘাবাসী পাচ্ছেনা বিদ্যুতের স্বাভাবিকতা। কোন কোন দিন ২৪ ঘন্টায় ২৫-৩০ বারের অধিক সময় পড়ছে বৈদ্যুতিক লোডশেডিং। মানা হচ্ছে না পবিত্র রমজান মাসের বিশেষ মূহুর্ত গুলো। এতে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে উপজেলার ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের। স্থানীয়রা জনান, এমনিতেই গ্রীষ্মকাল। ফলে তীব্র গরম অনুভূত হচ্ছে, তার উপরে বিদ্যুতের লোডশেডিং। এতে মানুষ অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছেন। পল্লী বিদ্যুতের ঘন ঘন লোডশেডিং মারাত্মক আকার ধারণ করেছে। গরমে অসুস্থ হয়ে পড়ছে শিশু ও বৃদ্ধরা। এখানে ২৫-৩০ দফায় ১০ থেকে ১২ ঘণ্টা বিদ্যুৎ না থাকার অভিযোগ রয়েছে অহরহ। চলমান গ্রীষ্মকাল ও পবিত্র রমজানে বিদ্যুৎ বিঘœতায় অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে পল্লী বিদ্যুৎ গ্রাহকরা। উপজেলার বৈদ্যুতিক লোডশেডিং এর শিকার মুসল্লিরা রমজান মাসে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের দাবী জানিয়ে বলেন, রমজানের শুরু থেকেই বেড়ে গেছে লোডশেডিং। হাজার হাজার বিদ্যুৎ গ্রাহককে পোহাতে হচ্ছে চরম দুর্ভোগ। উপজেলার আড়ানী এলাকার শিক্ষক আমানুল হক আমান জানান, পবিত্র রমজান মাসে বৈদ্যুতিক লোডশেডিং এর ফলে যেমনি ভোগান্তির শিকার চচ্ছেন মুসল্লিরা, তেমনি লিখা পড়ায় বিঘœ ঘটছে স্কুল-কলেজ পড়ুয়া ছাত্র/ছাত্রদের। অপরদিকে, এই প্রচন্ড তাপদাহ গরমের দিনে সারাদিন রোজা রাখার পর তারাবির নামাজের সময় বিদ্যুৎ না থাকায় চরম কষ্ট পোহাতে হচ্ছে রোজাদার মুসল্লিদের। সে সাথে সেহরি খেতে হচ্ছে অন্ধকারে। উপজেলার বাজু বাঘা এলাকার পল্লী চিকিৎসক আব্দুল লতিফ মিঞা জানান, পবিত্র রমজান মাসের শুরু থেকেই ভ্যাপসা গরমে মানুষের জীবন যখন ওষ্ঠাগত ঠিক সে সময়ে বিদ্যুতের সীমাহীন লোডশেডিং রোজাদারদের বেহাল অবস্থায় ফেলেছে। বেশ কয়েক দিন সেহরীর সময় বিদ্যুৎ না থাকায় স্নান ঘামা শরীরে ভুতুরে পরিবেশে সেহরী খেতে হয়েছে বলে তিনি জানান। তিনি আরো বলেন, গত কয়েকদিন ধরে উপজেলায় ভ্যাপসা গরম চরম আকার ধারণ করেছে। আর এ সময়ে বিদ্যুতের ভেলকিবাজি ও ঘন ঘন লোডশেডিং এর পাশাপাশি বাসা বাড়িসহ দোকান পাটের টিভি, ফ্রিজ, বৈদ্যুতিক পাখা এবং বাল্পগুলো প্রতিনিয়তই নষ্ঠ হচ্ছে। ফলে যে কোন মুহুর্তে রোজাদারসহ সর্বস্তরের মানুষ তাদের ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ ঘটাতে পারে বলে আশংকা করছেন তিনি। উপজেলার লাগামহীন লোডশেডিংয়ের বিষয়ে বাঘা পল্লী বিদ্যুতের এজিএম মাজহারুল ইসলাম বলেন, তীব্র এ গরমের কারণেই লোডশেডিং সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। আমরাও চেষ্টা করে যচ্ছি সেহরি, ইফতার ও তারাবির সময় সকল লাইন চালু রাখতে। কিন্তু অতিরিক্ত লোডশেডিংয়ের কারণে পেরে উঠছি না। আবার অনেক সময় লাইনের ত্রুটির করণেই এতো ঘন ঘন লোড়শেডিং হচ্ছে। তবে দ্রুত সমাধানের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বলে জানান তিনি।

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4391552আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 9এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET