২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, শুক্রবার, ১৪ই আশ্বিন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১৩ই রবিউল আউয়াল, ১৪৪৫ হিজরি

শিরোনামঃ-




রাজশাহী মহানগরীতে পাওনা টাকা চাওয়ায় ইট ব্যবসায়ীকে হুনডি ব্যবসায়ীর মারধর

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, নয়া আলো।

আপডেট টাইম : সেপ্টেম্বর ০৯ ২০২৩, ১৮:৪৮ | 905 বার পঠিত | প্রিন্ট / ইপেপার প্রিন্ট / ইপেপার

রাজশাহী মহানগরীতে পাওনা টাকা চাওয়ায় ইট ব্যবসায়ীকে বেধড়ক পিটিয়ে আহত করেছে মোঃ বাবু অরফে টিটি বাবু নামের এক হুনডি ব্যবসায়ী।
শুক্রবার (৯ সেপ্টেম্বর) নগরীর মতিহার থানার ধরমপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
এ ঘটনায় ভুক্তভোগী ইট ব্যবসায়ী মোঃ মিজারুল ইসলাম (৩৫), রামেক হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে নগরীর মতিহার থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।
অভিযুক্তরা হলেন, হুনডি ব্যবসায়ী মোঃ বাবু অরফে টিটি বাবু (৪৬), তিনি নগরীর মতিহার থানার ধরমপুর এলাকার মৃত ইন্তাজের ছেলে ও বাবুর ছেলে মোঃ শাহীন (২৩)।
ভুক্তভোগী ইট ব্যবসায়ী মোঃ মিজারুল ইসলাম জানায়, গত প্রায় দেড় মাস আগে হুনডি ব্যবসায়ী বাবুর বড় ছেলে হুনডি ব্যবসায়ী সাফিকে ১লাখ টাকা মূল্যের ইট দিয়েছিলাম। তিনি আমাকে নগদ ৪০ হাজার টাকা প্রদান করেন। এরপর থেকে ফোন দিলে ফোন ধরে না এবং ধরলেও যে সময়ে টাকা দেয়ার কথা বলে সেই সময় তাকে পাওয়া যায় না।
তাই শুক্রবার ছুটির দিন বিকালে বাড়িতে গিয়ে তাকে পাওয়া যাবে ভেবে, ধরমপুর এলাকায় তার বাড়ীর সামনে গিয়ে ফোন দেই। কিন্ত টিটি বাবু’র ছেলে সাফি ফোন রিসিভ করেন নি। এরপর বিকাল ৫টার দিকে বাড়ির বাইরে বেরিয়ে আসেন টিটি বাবু নামে খ্যাত হুনডি ব্যবসায়ী বাবু। এ সময় তিনি বলেন, তোর এতবড় সাহস টাকা চাইতে বাড়ির সামনে এসেছিস। একই সময় তার ছেলে শাহীন এসে আমাকে অকাথ্য ভাষায় গালীগালাজ করে এবং মারমুখি আচারণ করে।
তিনি আরও বলেন, আমি শাহীনকে গালি দিতে নিষেধ করলে টিটি বাবু বাঁশের লাঠি দিয়ে আমাকে পুরো শরীরে বেধড়ক আঘাত করে এবং তার ছেলে শাহীন এলোপাথাড়ী ভাবে লাথি, কিল ঘুষি মেরে মাটিতে ফেলে দেয়। এ সময় স্থানীয়রা এগিয়ে এসে তাদের হাত থেকে আমাকে রক্ষা করেন।
একাধীক স্থানীয়রা জানায়, টিটি বাবু একজন ভংয়কর প্রকৃতির মানুষ। সে ও তার ছেলে সাফি চোরাই পথে পাশ্ববর্তী দেশ ভারতে মাদকের টাকা (হুনডি) পাচার করে থাকে। এছাড়াও বাবু কুখ্যাত মাদক ডিলার চরের আক্কাসের কেস পার্টনার। তিনি মাদক চোরাকারি ও হুনডিতে অর্থ পাচারকারী। যাহা অত্র অঞ্চলের অধিকাংশ বাসিন্দারাই জানেন। তার লোক দেখানো ব্যবসা হিসেবে সাহেববাজারে কাপড়ের ব্যবসা রয়েছে। এই কাপড়ের দোকানেই হুনডির টাকা লেনদেন হয় বলেও দাবি স্থানীয়দের।
তারা আরও বলেন, মাদক কারবারিরা মাদকের টাকা দেয় টিটি বাবুকে। পরে তারা ভারতীয় সিমান্তে যায়। কাকে কত টাকার মাদক দিতে হবে বাবু ও তার ছেলে সাফি ফোনে বলে দেন ভারতীয় মাদক ব্যবসায়ীদের। সেই অনুযায়ী ভারতীয় মাদক কারবারিরা রাজশাহী অঞ্চলের মাদক কারবারিদের মাদক দেন। আর এইসব অর্থ (টাকা) চোরাইপথে হুনডির মাধ্যমে ভারতে পৌঁছে দেয় বাবু ও তার বড় ছেলে সাফি। এ ভাবেই চলছে কাপড়ের ব্যবসার আড়ালে হুনডি ব্যবসা। এছাড়াও অত্র অঞ্চলের কেউ ভারতে গেলে টিটিন বাবু ও তার ছেলে সাফিকে টাকা দেয়। ভারতের কোন স্থানে টাকা লাগবে, তিনি তাদের লোক দিয়ে সেই স্থানেই টাকা পৌঁছে দেন টাকা।
অভিযোগ উঠেছে, ২৫ থেকে ৩০ বছর অগেও পদ্মার চরে কৃষি কাজ করতেন এই টিটি বাবু। বর্তমানে তার সাহেব বাজারে একাধিক কাপড়ের দোকান রয়েছে। সেই সাথে কোটি কোটি টাকার অর্থ সম্পদ রয়েছে।
এ ব্যপারে জানতে টিটি বাবুর মুঠো ফোনে ফোন দেয়া হলে তিনি বলেন, আমাকে ২ ও ৩নং ইট দেয়া হয়েছিলো, তাই তাকে টাকা দেইনি। ইট ব্যবসায়ীকে মারপিট, টিটি ও চোরাইপথে ভারতে হুনডির মাধ্যমে টাকা পাচারের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, সব মিথিথ (মিথ্যা)।
এই কুখ্যাত হুনডি কারবারির বিষয়ে প্রশাসনিক নজরদারি বাড়ানো-সহ মাদক ব্যবসা রোধে ভারতে টাকা পাচার বন্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান স্থানীয়দের।
ইট ব্যবসায়ীকে মাপিটের ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে, মতিহার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ রুহুল আমিন বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। সেকেন্ড অফিসার পলাশকে তদন্তভার দেয়া হয়েছে। তদন্ত শেষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Please follow and like us:

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৬০১৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com নিউজ রুম।

Email-Cvnayaalo@gmail.com সিভি জমা।

 

 

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET