২রা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার, ১৮ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ২০শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

শিরোনামঃ-




রৌমারীর ইজলামারী ব্রিজটি যেন মরণ ফাঁদ

মোহাম্মদ ইমন মিয়া, বাঙ্গরা,কুমিল্লা করেসপন্ডেন্ট।

আপডেট টাইম : ফেব্রুয়ারি ০১ ২০১৮, ১৬:৪৭ | 698 বার পঠিত | প্রিন্ট / ইপেপার প্রিন্ট / ইপেপার

কুড়িগ্রাম থেকে, রাশিদুল ইসলাম ঃ
মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে রৌমারী ইজলামারী ব্রিজ। প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা। ব্রিজটি জনগণের চলাচলে চরম দুর্ভোগ সৃষ্টি করলেও নেই সংশ্লিষ্ট বিভাগের দৃষ্টি।
জানা গেছে, জেলার রৌমারী উপজেলা হতে ইজলামারী রাস্তাটিতে নির্মিত কূপ ভিত্তিক ব্রীজটি পরিকল্পিত ভাবে নির্মান না করায় ব্রীজের দু’পাশের মাটি সরে গিয়ে দু’পাশেই কার্পেটিংসহ রাস্তা ভেঙ্গে  যাতায়াত ও পরিবহনে সম্পূর্ণ অযোগ্য হয়ে পড়েছে। এছাড়া রাস্তাটিও ঠিকাদার ও এলজিইডি’র গাফিলাতির কারণে বরাদ্দ থাকা সত্বেও কার্পেটিং এর কাজ হচ্ছে না। অথচ ঠিকাদার গত ২০১৬-১৭ অর্থ বছরে সংস্কার ও কার্পেটিং করার জন্য পুরাতন কাপের্িিটং ভেঙ্গে দিয়েছে কিন্তু আজও কর্পেটিং করা হয়নি। ফলে যাতায়াত ও পরিবহনে মানুষের চরম দূর্ভোগের সৃষ্টি করেছে। অথচ  রাস্তাটি অত্র এলাকাবাসীসহ স্কুল-কলেজপড়–য়া শিক্ষার্থীদের ও বিজিবি জোয়ানদের চলাচলে এবং আমদানী ও  রফতানীতে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। রাস্তার বিষয়টি নিয়ে এলজিইডি নির্বাহী প্রকৌশলী কুড়িগ্রাম ও উপজেলা প্রকৌশলী রৌমারীকে একাধিকবার বলেও কোন ফলপ্রসু হয়নি।
এলাকার রইচ উদ্দিন, মহিম মন্ডল ও নজরুল মিয়া ক্ষোভের সাথে বলেন-সরকারি সুযোগ সুবিধা থেকে রৌমারী কেন বঞ্চিত হবে? দীর্ঘদিন যাবত এই ব্রিজটি আমাদের চলাচলে দুর্ভোগ সৃষ্টি করলেও কর্তৃপক্ষের কেন মাথা ব্যথা নেই? আমরা উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করছি।
এ ব্যাপারে কুড়িগ্রাম এলজিইডি নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ রুহুল আমিন জানান-খুব শীঘ্রই ব্রিজটির কার্পেটিংয়ের কাজ শুরু হবে।

Please follow and like us:

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৬০১৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com নিউজ রুম।

Email-Cvnayaalo@gmail.com সিভি জমা।

 

 

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET