১৪ই জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার, ৩১শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৩রা জিলকদ, ১৪৪২ হিজরি

শিরোনামঃ-

লাকসামে ডাঃ উসমানের অপচিকিৎসার বিরুদ্ধে অভিযোগের তদন্ত সম্পন্ন

Khorshed Alam Chowdhury

আপডেট টাইম : অক্টোবর ১১ ২০১৬, ১৭:১০ | 633 বার পঠিত

মো: জিল্লুর রহমান লাকসাম প্রতিনিধি:
দন্ত চিকিৎসার নামে অপচিকিৎসার এক অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে কুমিল্লার লাকসাম সেফটি ডেন্টাল কেয়ারের চিকিৎসক উসমান গণি কবিরের বিরুদ্ধে তদন্ত শেষ করেছেন কুমিল্লা জেলা সিভিল সার্জনের কার্যালয়। গতকাল সোমবার এক উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসারের অভিযোগের আলোকে সরেজমিনে এসে তদন্ত করেন মনোহরগঞ্জ উপজেলার ডেন্টাল সার্জন ও সিভিল সার্জন অফিসের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মোঃ আমিনুল ইসলাম ভূঁইয়া।
অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, মনোহরগঞ্জ উপজেলার উপ-সহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার মোঃ মোস্তফা কামাল পাশা মজুমদার লাকসাম সরকারী হাসপাতাল রোডে পশ্চিমগাঁও সামনীর পুলের পশ্চিম পার্শ্বে রুস্তম আলী প্লাজায় অবস্থিত সেফটি ডেন্টাল কেয়ারের ডাঃ উসমান গণি কবিরের চেম্বারে গিয়ে তার দুইটি দাঁতে ক্যাপ লাগানো থাকা অবস্থায় ডাঃ কবিরকে দেখায়। ডাক্তার উসমান গণি তাঁর দাঁতগুলো দেখে তাকে বলে আপনার সবগুলো দাঁত নষ্ট হয়ে গেছে। তাই দ্রুত রোট ক্যানেল করে ক্যাপ না বসানো হলে ভবিষ্যতে খাওয়া-দাওয়া করতে পারবেন না বলেও জানায়। পরে রোগী মোস্তফা কামাল পাশা মজুমদার ডাক্তারের কথা অনুযায়ী তাহার ১১টি দাঁত রোট ক্যানেল করে। এর কিছু দিন পর তাঁর দাঁতের অবস্থা বেগতিক দেখে দ্রুত ডেন্টাল সার্জনের কাছে গেলে ডেন্টাল সার্জন ভাল দাঁত গুলোকে নষ্ট করে ফেলেছে বললে তিনি নিরুপায় হয়ে কুমিল্লা সিভিল সার্জন এর বরাবর প্রতিকার চেয়ে একটি আবেদন করেন। আবেদনের প্রেক্ষিেিত গত ২ সেপ্টেম্বর-১৬ইং তারিখে সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ মজিবুর রহমান সদর দক্ষিণ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ডেন্টাল সার্জন ডাঃ মোঃ ফখরুল ইসলাম কে সভাপতি, মনোহরগঞ্জ উপজেলার ডেন্টাল সার্জন ও সিভিল সার্জন অফিসের প্রশাসনিক কর্মকর্তা মোঃ আমিনুল ইসলাম ভূঁইয়া কে সদস্য করে তিন সদস্যের একটি কমিটি নং সি.এস.সি/শা-৫/২০১৬ স্বারকে অফিস আদেশ প্রদান করে ১৫দিনের ভিতরে প্রতিবেদন দিতে বলেন। সে সুবাধে গতকাল ১০অক্টোম্বর উক্ত তদন্ত কমিটি লাকসামের অভিযোগকৃত সেফটি ডেন্টাল কেয়ার এর ডেন্টাল ডাঃ উসমান গণি কবিরের চেম্বারে এসে দীর্ঘ সময় তদন্ত করেন এবং উভয়কে বিষয়টি নিয়ে জিজ্ঞাসা করেন। তদন্ত শেষে তদন্ত কমিটিকে এ বিষয়ে জিজ্ঞাসা করলে তারা তদন্তাধীন কোন বিষয়ে মন্তব্য করা যাবে না বলে জানান। ডাঃ উসমান গণি কবির নামের পরে কিছু ডিগ্রী আছে তাহা হচ্ছে, বিএসসি (ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়) সিপিআর (বারডেম হাসপাতাল) আইসিটি (ডেন্টাল ডিপার্টমেন্ট) শহীদ সোহরাওয়াদী কলেজ হাসপাতাল। জন মণে প্রশ্ন হচ্ছে এভাবে লাকসাম সহ বিভিন্ন স্থানে ডেন্টাল সার্জন সাইনবোড টাঙ্গিয়ে অসংখ্য ডাক্তার দাঁতের রোগের চিকিৎসার নামে প্রতারণা করছে এবং তাদের অপচিকিৎসায় অসংখ্য রোগীর দাঁতগুলোকে নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। কুমিল্লার সিভিল সার্জন একজন স্বাস্থ্য বান্ধব ব্যক্তি হিসেবে তদন্ত কমিটির সার্বিক তদন্ত রিপোর্ট পেয়ে যথাযথ ব্যবস্থা নিতে দ্বিধাবোধ করবে না বলে বিজ্ঞ মহল আশা করছে।

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4572270আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 1এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com নিউজ রুম।

Email-Cvnayaalo@gmail.com সিভি জমা।

 

 

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET