১লা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, রবিবার, ১৭ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২১শে জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি

শিরোনামঃ-

লালমনিরহাট সদর হাসপাতালের ইউজার ফির ১৪ লাখ টাকা আত্মসাৎ, তোলপাড়

Khorshed Alam Chowdhury

আপডেট টাইম : আগস্ট ২৩ ২০১৬, ০২:০৪ | 660 বার পঠিত

Lalmonirhta Haspatal NewsLalmonirhta Haspatal News_জিয়াউর রহমান মানিক, লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধি –
লালমনিরহাট ১০০ শয্যা বিশিষ্ট সদর হাসপাতালের ইউজার ফি ১৪ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে। লালমনিরহাট সদর হাসপাতালের দুই সদস্যের তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন ও ঢাকার সেগুন বাগিচার সিভিল অডিট টিমের প্রধানের এ সংক্রান্ত প্রতিবেদনের ঘটনায় হাসপাতালের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও চিকিৎসকদের মধ্যে তোলপাড় শুরু হয়েছে।
লালমনিরহাট ১০০ শয্যা বিশিষ্ট সদর হাসপাতাল ও প্রাপ্ত তদন্ত প্রতিবেদন সূত্রে জানা গেছে, বিগত ২০১৪ সালের আগস্ট মাস হতে ২০১৫ সালের জুন মাস পর্যন্ত জরুরি বিভাগে আগত রোগীদের টিকিট ফি, বহিঃবিভাগে আগত রোগীদের টিকিট ফি, প্যাথলজি, এক্স-রে, ইসিজি ফি, রোগী পরিবহনের জন্য ব্যবহৃত এ্যাম্বুলেন্স ভাড়া ও রোগীদের থাকার কেবিন ভাড়া বাবদ হাসপাতালের নির্ধারিত ফির রশিদের মাধ্যমে অফিস সরহকারী কাম হিসাব রক্ষক মাহবুব আলম ট্রেজারিতে জমা দানের জন্য ১৯ লাখ ৮৯ হাজার ১০০টাকা সংগ্রহ করেন। কিন্তু ট্রেজারিতে ৫ লাখ ৭৯ হাজার ৯৫৫ টাকা জমা করলেও অবশিষ্ট ১৪ লাখ ৯ হাজার ১৪৫ টাকা ভূয়া সিল ও স্বাক্ষর জালিয়াতি করে ট্রেজারি চালানের মাধ্যমে আত্মসাৎ করার অভিযোগ তদন্ত প্রতিবেদনে উঠে এসেছে।
লালমনিরহাট ১০০ শয্যা সদর হাসপাতালের চিকিৎসক ও তদন্ত কমিটির সভাপতি ডাঃ মোঃ আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ‘অনুসন্ধান ও কাগজপত্র পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে ১১০ পৃষ্ঠার একটি তদন্ত প্রতিবেদনসহ ১৬ আগস্ট হাসপাতালের তত্বাবধায়ক বরাবর দাখিল করা হয়েছে। তদন্তে গত ২০১৪-২০১৫ অর্থবছরে হাসপাতালের ইউজার ফি মোট ১৯ লাখ ৮৯ হাজার ১০০ টাকা আদায় করার প্রমাণাদি পাওয়া যায়। এরমধ্যে ৫ লাখ ৭৯ হাজার ৯৫৫ টাকা সোনালী ব্যাংকের লালমনিরহাট শাখায় ট্রেজারি চালানের মাধ্যমে জমা করার কাগপত্র পাওয়া যায়। এবং সোনালী ব্যাংক লালমনিরহাট শাখা ও লালমনিরহাট হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তার সিল-স্বাক্ষর জালিয়াতি করে ভূয়া ট্রেজারি চালানের মাধ্যমে হাসপাতালের অফিস সহকারী কাম হিসাব রক্ষক মাহবুব আলম ১৪ লাখ ৯ হাজার ১৪৫ টাকা আত্মসাৎ করার প্রমাণসহ পূর্ণাঙ্গ বিবরন ওই তদন্ত প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে। এখন তার বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নেবেন সেটি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের বিষয়। এ বিষয়ে আমার কোন করণীয় বা বলার কিছ নেই।’
লালমনিরহাট ১০০ শয্যা বিশিষ্ট সদর হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডাঃ নুরুজ্জামান আহমেদ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ‘ইউজার ফি আত্মসাতের ঘটনাটি আমার যোগদানের আগে ঘটেছিল। ঢাকা ও স্থানীয় তদন্ত টিমের তদন্ত প্রতিবেদন ১৬ আগস্ট হাতে পেয়েছি। সরকারি চাকুরি বিধি অনুযায়ী অভিযুক্ত অফিস সহকারী কাম হিসাব রক্ষক মাহবুব আলমের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়া শুরু করা হয়েছে। ইতোমধ্যে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য তত্বাঃ/১০০শঃবিঃহাসঃ/লাল/২৩/১৬/৩৩৮৬; ১৬ আগস্ট-২০১৬ খ্রীঃ তারিখে স্মারকে ‘ইউজার ফি’ জমা না হওয়া সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন রংপুর অঞ্চলের পরিচালক(স্বাস্থ্য) বরাবর প্রেরণ করা হয়েছে।’
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে অফিস সহকারী কাম হিসাব রক্ষক মাহবুব আলম বলেন, ‘আমি ষড়যন্ত্রের শিকার হয়েছি। এ ঘটনাটি সামনে আসার পর অডিট আপত্তি হওয়ায় টাকাগুলো সংশ্লিষ্ট হিসাব নম্বরে জমা দেওয়ার চেষ্টা করছি।’
এদিকে সোনালী ব্যাংক লালমনিরহাট শাখা ব্যবস্থাপক আব্দুল বারেক চৌধুরি বলেন, ‘ব্যাংকের বাইরের কোন ঘটনায় আমার বলার কিছু নেই। এখন থেকে হাসপাতালের ইউজার ফি জমার ক্ষেত্রে ট্রেজারি চালান ও সিল স্বাক্ষর সঠিক আছে কি না এবং টাকা জমা হয়েছে কি না তা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ যাচাই করে দেখতে পারেন।’

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4659905আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 5এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com নিউজ রুম।

Email-Cvnayaalo@gmail.com সিভি জমা।

 

 

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET