২৩শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, শুক্রবার, ১০ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১০ই রমজান, ১৪৪২ হিজরি

শিরোনামঃ-

শীত না এলেও শীতের সবজি আসতে শুরু করেছে নড়াইলের বাজার গুলোতে

Khorshed Alam Chowdhury

আপডেট টাইম : অক্টোবর ১৮ ২০১৬, ১৪:১০ | 683 বার পঠিত

sobji-18-1016উজ্জ্বল রায়, নড়াইল জেলা প্রতিনিধি –

নড়াইল-১৮-১০-১৬- শীত না এলেও শীতের সবজি আসতে শুরু করেছে নড়াইলের বাজার গুলোতে। তবে দাম তুলনামূলক বেশি। বাজারভেদে দামেরও হেরফের রয়েছে। বিক্রেতারা বলছেন, সবজিগুলো বাজারে নতুন ওঠানোর সময় দাম বেশিই রাখা হয়। কৃষকদের কাছ থেকে বেশি দামে কিনতে হয় বলে বিক্রিও করতে হয় বেশি দামে। তবে শীত বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সবজির সরবরাহ বেড়ে গেলে দামও কমে আসবে। আমাদের নড়াইল জেলা প্রতিনিধি উজ্জ্বল রায়ের পাঠানো তথ্যর ভিতিতে জানা যায় সরেজমিনে নড়াইল বাজার, ঘুরে দেখা গেছে, বিভিন্ন ধরনের শীতের সবজি নিয়ে বসেছেন বিক্রেতারা। সবজির মধ্যে শিম বিক্রি হচ্ছে প্রতি কেজি ১০০ থেকে ১২০ টাকায়, ফুলকপি প্রতিটি ৩০ থেকে ৩৫ টাকা, বাঁধাকপি প্রতিটি ২৫ থেকে ৩০ টাকা ও বেগুন প্রতি কেজি ৪০ থেকে ৫০ টাকায়। এ ছাড়া প্রতি কেজি ধনেপাতা ৩০০ টাকা, গাজর ৮০ টাকা, মুলা ৫০ টাকা, করলা ও চিচিঙ্গা ৫০ টাকা, বরবটি ৭০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। শীতের সবজির মধ্যে টমেটো থাকলেও এখন সারা বছরই টমেটো পাওয়া যায়। টমেটো বিক্রি হচ্ছে ১২০ টাকা কেজি দরে। শীতের সবজির সঙ্গে বিক্রি হচ্ছে জলপাইও। অনেকে ডাল বা টকের তরকারি হিসেবে জলপাই ব্যবহার করেন। অনেকে জলপাইয়ের আচার বানান। জলপাই বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৫০ টাকা কেজিতে। তবে শীতের নতুন আলু বাজারে আসেনি এখনো। বিক্রেতারা জানালেন, আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যেই নতুন আলুও বাজারে পাওয়া যাবে।এদিকে দামের ক্ষেত্রে বেশ ভিন্নতাও পাওয়া গেছে। পাশাপাশি দোকানের সবজির দামে হেরফের দেখা গেছে। বাজারভেদেও রয়েছে দামের ভিন্নতা। হাতিরপুলে এক দোকানে শিম বিক্রি হচ্ছে ১০০ টাকা কেজি দরে। আবার পাশের দোকানেই বিক্রি হচ্ছে ১৪০ টাকায়। বেশি দামে বিক্রি করা বিক্রেতা মো. আমান দাবি করেছেন, তাঁর শিমের মান ভালো। এ কারণে দাম বেশি। বাজারের সবজি বিক্রেতা বলেন, কয়েক সপ্তাহ ধরেই শীতের নানা ধরনের সবজি বিক্রি শুরু হয়েছে। দিন দিন সরবরাহ বাড়ছে। তবে নতুন বলে দাম কিছুটা বেশি। আরেক বিক্রেতা জানালেন, বিক্রেতাদের বেশি দামে সবজি কিনতে হচ্ছে। এ কারণে তাঁরা ক্রেতাদের কাছে দাম বেশি রাখছেন। কয়েকজন সবজি বিক্রেতা জানালেন, শিম, ধুন্দুল, ফুলকপি, বাঁধাকপি এসব বেশি আসছে খুলনা, কুষ্টিয়া ও যশোর এলাকা থেকে। সেসব এলাকায় তুলনামূলক উঁচু জায়গায় এসব সবজির চাষ হয়। এ ছাড়া যেসব এলাকায় বন্যার পানি সরে যেতে শুরু করেছে, সেখানেও সবজির চাষ শুরু হয়েছে। সেগুলো একযোগে আসা শুরু হলে দাম অনেক কমে আসবে। বাজারে ধনেপাতা, মুলা ও ফুলকপি কিনছিলেন বাসিন্দা। তিনি জানালেন, বাজারেও সবজি পাওয়া যাচ্ছে। কিন্তু সেসব সবজির দাম বাজার থেকে প্রতি কেজিতে ১০ থেকে ২০ টাকা বেশি। তাই তিনি বাজারে সবজি কিনতে এসেছেন। দুটি ফুলকপি তিনি ৫০ টাকায় কিনেছেন। অথচ এর দাম ৮০ টাকা বলে জানালেন। একই ভাবে ধনেপাতা ও মুলার দামও কারওয়ান বাজারে কম বলে জানালেন তিনি। ধনেপাতা বিক্রেতা আবুল বাশার বলেন, কয়েক দিন আগেও ধনেপাতার কেজি ৫০০ টাকা ছিল। এখন ৩০০ টাকা। দাম আরও কমে আসবে।

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4497819আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 8এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com নিউজ রুম।

Email-Cvnayaalo@gmail.com সিভি জমা।

 

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET