২৯শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, বৃহস্পতিবার, ১৪ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১৮ই জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি

শিরোনামঃ-

শৈলকুপায় শিক্ষক মাহাবুবুর রহমান মারুফ এখন চাঁদাবাজ !

Khorshed Alam Chowdhury

আপডেট টাইম : আগস্ট ১২ ২০১৬, ১৯:০৮ | 656 বার পঠিত

ঝিনাইদহ প্রতিনিধিঃ
ঝিনাইদহের শৈলকুপায় এক শিক্ষক নেতার বিরুদ্ধে বেপরোয়া চাঁদাবাজির অভিযোগ উঠেছে। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক ও ৩৩ নং পুরাতন বাখরবা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মাহাবুবুর রহমান মারুফ দীর্ঘদিন বাজার ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষের নিকট থেকে চাঁদা আদায় করে আসছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই এলাকার একাধিক ব্যক্তি জানান, শিক্ষক নেতা মাহাবুবুর রহমান মারুফের বিরুদ্ধে শৈলকুপা থানায় একাধিক মামলা রয়েছে।

এছাড়াও সরকারি প্রতিষ্ঠানের গাছ চুরিসহ মালামাল আত্মসাতের অভিযোগও রয়েছে তার বিরুদ্ধে।
৬নং সারুটিয়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান তার ঘনিষ্ঠজন হওয়ায় প্রভাববিস্তারসহ আইনের থোরাইকেয়ার করে নানা অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

বিভিন্ন অযুহাতে স্কুল ফাঁকি দিয়ে সার্বক্ষনিক রাজনীতি চর্চায় ব্যস্ত থাকা শিক্ষক মাহাবুবুর রহমান মারুফ এর অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে এলাকাবাসী।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কাতলাগাড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে বহু টাকার গাছ চুরির অপরাধে তাকে তাৎক্ষনিক বদলী করা হয় কিন্তু প্রভাব খাঁটিয়ে নিজ গ্রামের স্কুলেই থেকে যায় ওই শিক্ষক।
বড়–রিয়া গ্রামের প্রধান শিক্ষক জহুরুল ইসলাম জানান, মারুফ মাস্টারের রাজনৈতিক সহযোগিতা না করার অপরাধে তাকে ৪০ হাজার টাকা চাঁদা দিতে হয়েছে।

গ্রাম্য ষড়যন্ত্র চালিয়ে বৃত্তিপাড়ার আমির বিশ্বাসের ছেলে জমিন হোসেনের হালের গরু বিক্রি করে ৭০ হাজার টাকা আদায় করে নিয়েছে মারুফ মাস্টার।

সারুটিয়া ইউনিয়নের হাটঘাট, বালুমহল, স্ট্যাটারী, ফুটপাত দখলসহ সালিশী ব্যবসা তার অন্যতম আয়ের উৎস।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক দোকানী জানান, মারুফ মাস্টারের আদেশমত দল না করলে তাকেই গুনতে হয় মাসিক মাসোহারা অথবা রাখতে হয় দোকান বন্ধ। তার দাবি না মানায় এখনো বাড়িছাড়া রয়েছে অনেক মানুষ।

এলাকা ছাড়া ভুলুন্দিয়া গ্রামের শামছুল ইসলাম বলেন, নামমাত্র শিক্ষকতার পাশাপাশি রাজনৈতিক প্রভাব বিস্তারই তার বর্তমান পেশা এবং মানুষের হয়রানি করে অর্থহাতানো তার নিয়মিত রুটিন। দালালখ্যাত এ মারুফ মাস্টারের খপ্পড়ে পড়ে সর্বশান্ত হয়েছে চরবাখরবা গ্রামের মাজহারুল ইসলাম। তাকেও চাঁদা দিতে হয়েছে ৪ লাখ টাকা

থানা পুলিশ দিয়ে মানুষকে হয়রানি, চাকুরির প্রলোভন দেখিয়ে মোটা অংকের টাকা আদায়, সালিশী রায় পক্ষে করে দেওয়ার দালালী কর্মই যেন তার নেশাপেশা।

সচেতন মহলের প্রশ্ন রাতের আঁধারে কোটিপতি বনে যাওয়া রাজনৈতিক সুবিধাভোগি মারুফ মাস্টারের এ শক্তির উৎস কোথায় ?

অবিলম্বে এ শিক্ষক নেতার বিরুদ্ধে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার দাবী ভুক্তভোগীদের।
এ ব্যাপারে শিক্ষক মাহাবুবুর রহমান মারফ তার বিরুদ্ধে অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমার বিরুদ্ধে আপনাদের কাছে কেউ মিথ্যা তথ্য দিয়েছে। অভিযোগের কোন সত্যতা নেই।

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4655277আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 12এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com নিউজ রুম।

Email-Cvnayaalo@gmail.com সিভি জমা।

 

 

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET