২রা মার্চ, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার, ১৮ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ২০শে শাবান, ১৪৪৫ হিজরি

শিরোনামঃ-




সিলেটে এক ঘণ্টার উত্তাপ

নয়া আলো অনলাইন ডেস্ক।

আপডেট টাইম : ফেব্রুয়ারি ১৯ ২০২৩, ০০:৩৭ | 700 বার পঠিত | প্রিন্ট / ইপেপার প্রিন্ট / ইপেপার

সিলেটে বিএনপি পদযাত্রা করবে। ঘোষণা আগেই দেয়া হয়েছিল। আওয়ামী লীগও শান্তি সমাবেশ করবে। এ ঘোষণাও আগের। দু’দলের কর্মসূচিস্থল দু’স্থানে। কোর্ট পয়েন্টে আওয়ামী লীগ। আলীয়া মাদ্রাসা মাঠে বিএনপি। তবে- উত্তাপ ছিল কোর্ট পয়েন্টকে ঘিরে। কারণ- আওয়ামী লীগের সমাবেশস্থলের পাশ দিয়ে কোর্ট পয়েন্ট এলাকা পাড়ি দেয়ার কথা বিএনপি’র পদযাত্রার। বিকাল ৩টা থেকে সোয়া ৩টার দিকে কোর্ট পয়েন্ট পাড়ি দেয়ার কথা ছিল বিএনপি’র।

কিন্তু নির্ধারিত সময়ে বিকাল ৩টার আগেই সেখানে এসে যান আওয়ামী লীগ নেতারা। ফলে চাপা উত্তেজনা দেখা দেয়। আওয়ামী লীগ বিলম্ব করেনি। সোয়া তিনটার দিকে তারা কোর্ট পয়েন্ট শান্তি সমাবেশ ও মানববন্ধন কর্মসূচি শুরু করে। মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মাসুক উদ্দিন আহমদ ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জাকির হোসেনের নেতৃত্বে নেতাকর্মীরা মানববন্ধন শুরু করেন। কালেক্টর মসজিদের সামনে তাদের অবস্থানস্থল। উল্টো দিকে মধুবন মার্কেটের সামনে পুলিশের অবস্থান। খবর আসছিল বিএনপি’র পদযাত্রা আসছে। ওই পদযাত্রায় নেতৃত্ব দিচ্ছেন স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান সহ সিনিয়র নেতারা। তবে- আওয়ামী লীগ মানববন্ধন ও শান্তি সমাবেশ বেশিক্ষণ স্থায়ী করলো না। যুগ্ম সম্পাদক এটিএম হাসান জেবুলের পরিচালনায় সমাবেশে প্রারম্ভিক বক্তৃতা করেন মহানগর সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জাকির হোসেন। পরে সমাপনী বক্তৃতা করেন সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মাসুক উদ্দিন। ততক্ষণে বিএনপি’রও পদযাত্রার আগের সমাবেশ চলছিল আলীয়া মাদ্রাসা মাঠে। তারা পদযাত্রা শুরু করার আগেই আওয়ামী লীগের কর্মসূচি শেষ হয়ে যায়। তবে- কর্মসূচি শেষ হলেও যুবলীগ কোর্ট পয়েন্টে অবস্থান নিয়েছিল। বিএনপি-জামায়াতের জ্বালাও পোড়াও অশান্তির প্রতিবাদে কোর্ট পয়েন্টে সমাবেশের ডাক দিয়েছিল যুবলীগ। আওয়ামী লীগের কর্মসূচির পর নেতাকর্মীরা সমাবেশের প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। মাইকেও ঘোষণা আসছিল সমাবেশ শুরুর। এমন সময় বিএনপি’র পদযাত্রাটি আসে পুরান লেন এলাকায়। সামনে মোটরসাইকেল। এরপর কেন্দ্রীয় নেতা খন্দকার মুক্তাদির সহ কয়েকজন।  পেছনে মূল পদযাত্রার সম্মুখভাগ। কোর্ট পয়েন্টে থাকা পুলিশ দল সতর্ক হয়ে উঠলো। তারা গিয়ে যুবলীগের সমাবেশের সামনে ব্যারিকেড দেয়। বিএনপি’র পদযাত্রাটি কোর্ট পয়েন্টে আসামাত্র মূল র‌্যালি থেকে দৌড়ে সামনে এলেন খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির ও জেলা বিএনপি’র সভাপতি আব্দুল কাইয়ূম চৌধুরী এবং স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা ফরহাদ চৌধুরী শামীম। তারা পুলিশের সঙ্গে দাঁড়িয়ে যান। আর বিএনপি’র নেতাকর্মীদের রাস্তার ওপাশ দিয়ে চলে যেতে বললেন। তাদের কথা শুনলেন সবাই। স্লোগান দিতে দিতে বিএনপি’র নেতাকর্মীরা পদযাত্রা করে হাসান মার্কেটের সামনে দিয়ে কামরান চত্বর অভিমুখে চলে যান। বিএনপি’র পদযাত্রা কোর্ট পয়েন্ট পাড়ি দিতে ৩-৪ মিনিট সময় লেগেছে। ওই সময় মহানগর যুবলীগ সভাপতি আলম খান মুক্তিকেও সরব হতে দেখা যায়। তিনি এগিয়ে এসে যুবলীগের নেতাকর্মীদের তাদের মঞ্চের দিকে সরিয়ে নেন। বিএনপি’র নেতাকর্মীরা স্বাভাবিকভাবেই পদযাত্রা করে কোর্ট পয়েন্ট পাড়ি দেন। এদিকে- বিএনপি’র পদযাত্রাটি চলে যাওয়ার পর কোর্ট পয়েন্ট এলাকায় আরও বেশি জড়ো হতে থাকেন যুবলীগ কর্মীরা। বিকালে তারা ওই এলাকায় সমাবেশও করেন। মহানগর বিএনপি’র সদস্য সচিব মিফতাহ সিদ্দিকী  জানিয়েছেন, সিলেটে তাদের এই পদযাত্রাটি চৌহাট্টা, জিন্দাবাজার, কোর্ট পয়েন্ট, কামরানচত্বর হয়ে সুরমা মার্কেটে যায়। সেখান থেকে তারা দক্ষিণ সুরমায়ও চলে যান। এদিকে- আওয়ামী লীগের সমাবেশকে কেন্দ্র করে কোর্ট পয়েন্ট এলাকায় যানজটের সৃষ্টি না হলেও বিএনপি’র পদযাত্রাকে কেন্দ্র করে নগরজুড়ে যানজটের সৃষ্টি হয়েছিল। বিশেষ করে চৌহাট্টা, জিন্দাবাজার সহ কয়েক এলাকায় বিকাল পর্যন্ত তীব্র যানজট ছিল। এর আগেও আওয়ামী লীগ ও বিএনপি’র পাল্টাপাল্টি কর্মসূচিকে ঘিরে সিলেটে উত্তাপ দেখা দিয়েছিল।

 

 
Please follow and like us:

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৬০১৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com নিউজ রুম।

Email-Cvnayaalo@gmail.com সিভি জমা।

 

 

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET