১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার, ৩রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১০ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি

শিরোনামঃ-

হোমনায় গ্রেনেট বিস্ফোরণ, শব্দ শুনে ২৯জন ছাত্রী আহত |

Khorshed Alam Chowdhury

আপডেট টাইম : এপ্রিল ২৮ ২০১৬, ০০:৩০ | 682 বার পঠিত

received_1702054793397148[1] তপন সরকার,হোমনা প্রতিনিধি-

হোমনা কুমিল্লায় হোমনা গ্রেনেড বিস্ফুরণের বিকট শব্দে ২৯ ছাত্রী আহত হয়েছে। আজ বুধবার হোমনা থানা সংলগ্ন তিতাস নদীর পারে এ বিস্ফোরণ ঘটায় সেনাবাহিনীর একটি দল। এতে থানার পাশে অবস্থিত হোমনা কফিল উদ্দিন পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ২৯জন ছাত্রী আহত হয়। পরে তাদেরকে উদ্ধার করে হোমনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

থানা পুলিশ ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সুত্রে জানা গেছে, গতবছর মার্চ মাসে হোমনা উপজেলার রামকৃষ্ণপুর কে কে আর কে উচ্চ বিদ্যালয়ের ভবন নির্মাণ করতে গিয়া মাটির নিচ থেকে অবিস্ফোরিত সাতটি গ্রেনেড পায় নির্মাণ শ্রমিকরা। পরে থানা পুলিশ খবর পেয়ে গ্রেনেড গুলো উদ্ধার করে থানায় রেখে দেয়। উদ্ধার হওয়া গ্রেনেডগুলো স্বাধীনতা যুদ্ধকালীন সময়ের বলে জানায় থানা পুলিশ। গতকাল বেলা সাড়ে ১২টার দিকে কুমিল্লা সেনানিবাসের একটি বোমা বিশেষজ্ঞ দল ওই গ্রেনেড গুলো অকেজো করতে হোমনা থানা সংলগ্ন তিতাস নদীর পাড়ে বিস্ফোরণ ঘটায়। এতে বিকট শব্দ হলে পাশের হোমনা কফিল উদ্দিন পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণির ২৯জন ছাত্রী অসুস্থ হয়। পরে তাদেরকে উদ্ধার করে হোমনা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

বিদ্যালয়ের সভাপতি মো. আনোয়ার হোসেন বাবুল জানান, সাড়ে ১২টার দিকে আমি ও ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্যরা অফিসে বসে কথা বলছিলাম, এ সময় বিকট একটি শব্দ হলে মেয়েরা হুরোহুরি করে দোতলা থেকে নামতে থাকে। প্রচন্ড শব্দে ৩০-৩৫জন ছাত্রী একের পর এক অসুস্থ হলে তাদেরকে উদ্ধার করে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এই খবর পেয়ে ইউএনও কাজী শহীদুল ইসলাম, উপজেলা চেয়ারম্যান এডভোকেট মো. আজিজুর রহমান মোল্লা ও পৌর মেয়র এডভোকেট নজরুল ইসলাম বিদ্যালয়ে ও হাসপাতালে ছাত্রীদের দেখতে যান।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মো. হাছান আলী বলেন, গ্রেনেডের বিকট শব্দ শুনে ভয়ে শিক্ষার্থীরা অসুস্থ হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ২৯জন ছাত্রীকে হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। হোমনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবুল ফয়সল বলেন, রামকৃষ্ণপুর কে.কে আর.কে উচ্চ বিদ্যালয়ের ভবন নির্মাণকালীন গত বছর সাতটি তাজা গ্রেনেড উদ্ধার করা হয়। সেগুলো স্বাধীনতা যুদ্ধকালীন সময়ের অবিস্ফোরিত গ্রেনেড। কুমিল্লা সেনানিবাস থেকে একটি বিশেষজ্ঞ দল ওই গ্রেনেডগুলোর বিস্ফোরণ ঘটায়। এতে বিকট শব্দ হলে পাশের একটি বালিকা বিদ্যালয়ের ২০-২৫জন অসুস্থ হয়েছে। এদেরকে হোমনা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি কওে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে ।

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4719707আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 2এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com নিউজ রুম।

Email-Cvnayaalo@gmail.com সিভি জমা।

 

 

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET