১লা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার, ১৬ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৬ই রজব, ১৪৪২ হিজরি

শিরোনামঃ-

জালিয়াতির মাধ্যমে ক্লিনিকের নাম ও মালিকানা পরিবর্তনের অভিযোগ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, নয়া আলো।

আপডেট টাইম : নভেম্বর ২৭ ২০২০, ২১:৫৩ | 802 বার পঠিত

যশোরের কেশবপুর উপজেলার মহাকবি মাইকেল ক্লিনিকের নাম ও মালিকানা পরিবর্তনের অভিযোগ উঠেছে ম্যানেজার বাটপার মাহমুদুল ইসলাম টুলুর বিরুদ্ধে। মাহমুদুল ইসলাম টুলুর এমন মীর জাফরের মত নেক্কার জনক কাজের বিরুদ্ধে আইনানুগত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে যশোর সিভিল সার্জনের নিকট লিখিত অভিযোগ করেছেন প্রতিষ্ঠানটির মালিক হাজী মোঃ নাসির উদ্দিন গাজী ।

অভিযোগ সূত্রে জানাযায়, মহাকবি মাইকেল ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার পরিচালনা করার জন্য ম্যানেজার মাহমুদুল ইসলাম টুলুর উপর উপর দায়ীত্ব প্রদান করি। দুঃখজনক হলেও সত্য প্রতারক টুলু আমাকে ক্লিনিকের দুই বছরের আয় ব্যায়ের হিসাব না দিয়ে ক্লিনিকের কাগজ নিয়ে জাল জালিয়াতির মাধ্যমে মালিকানা ও নাম পরিবর্তন করে নিজের নামে লাইসেন্স পাওয়ার জন্য স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে অনলাইনে আবেদন করেছে মাইকেল হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার নামে এবং সে জেলা স্বাস্থ্য প্রশাসনের তদন্তের সময় আমার ক্লিনিকের মালামাল দেখিয়ে প্রতারনা পূর্বক লাইসেন্স পাওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। সে তার এই অবৈধ মাইকেল হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে প্রতিনিয়ত ভুয়া ডাক্তার দিয়ে অপারেশন চালিয়ে যাচ্ছে। সম্প্রতি একটি নবজাতক মারা গেলে মহাকবি মাইকেল ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের প্যাড ব্যবহার করে লিখিতভাবে নিজের দোষ শিকার করে। এতে করে আমার ভাবমুর্তি নষ্ট হচ্ছে এবং বড় ধরনের ক্ষতির সম্ভবনা দেখা দিয়েছে। এমতাবস্থায় মাইকেল নামে নতুন করে লাইসেন্স প্রদান না করা ও প্রতারক মাহমুদুল ইসলাম টুলুর অবৈধ হাসপাতাল সিলগালা করার আবেদন করেছেন  মহাকবি মাইকেল ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মালিক হাজী মোঃ নাসির উদ্দিন গাজী।

স্থানীয় একাধিক সূত্রে জানাযায়, কেশবপুরের আলােচিত বাটপার মাহমুদুল ইসলাম টুলু আগে ছিল মহাকবি মাইকেল ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিকের ম্যানেজার । কিছুদিন আগে ক্লিনিক থেকে করােনা রােগী উদ্ধার হলে প্রতিষ্ঠানটি সীলগালা করে প্রশাসন। এরপর সু-চতুর টুলু রাতারাতি জাল জালিয়াতির মাধ্যমে ক্লিনিকের নাম ও মালিকানা পরিবর্তন করে স্বাস্থ্য প্রশাসনের নিকট নিজের নামে মাইকেল হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের লাইন্সেসের আবেদন করেছেন।  অনুমােদন না হলেও অবৈধ হাসপাতালে চলছে রমরমা অপারেশন বাণিজ্য । এক সময় পিয়ন ও ওটি বয়ের দায়ীত্ব পালন করা টুলু মাত্র ৪ মাসের ব্যাবধানে অবৈধ হাসপাতালের মালিক হয়েছেন ।

তার এই অবৈধ মাইকেল হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নেই কোন স্থায়ী চিকিৎসাক , দক্ষ টেকনিশিয়ান। চিকিৎসক না থাকলেও তাদের সিল – স্বাক্ষর দেওয়া খালি প্রেসক্রিপশন থাকে । তার অবৈধ হাসপাতালে সিজার করা হয় ওটি বয়দের দিয়ে । এতে অনেক শিশু বিকলাঙ্গ হয়ে যায় অনেকে মারাও যায় । এভাবে হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে রােগী ও স্বজনদের । কিছুদিন আগে তার অবৈধ হাসপাতালে অচিকিৎসাতে মাণিরামপুরের এক নবজাতক মারা গেলে স্বজনদের নিকট নিজের দোষ স্বীকার করে মহাকবি মাইকেল ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের প্যাডে লিখিত দোষ স্বীকার করে মাহমুদুল ইসলাম টুলু ।

এ ব্যাপারে মহাকবি মাইকেল ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের মালিক হাজী মোঃ নাসির উদ্দীন কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, টুলু তার ক্লিনিকের ম্যানেজার থেকে জাল জালিয়াতির মাধ্যমে মালিক বনে গেছে সে রাতারাতি ক্লিনিকের নাম ও মালিকানা পরিবর্তন করেছে আমি এ ব্যাপারে আইনানুগত ব্যাবস্থা গ্রহণের জন্য যশোর সিভিল সার্জনের নিকট লিখিত অভিযোগ করেছি।

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4392079আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 2এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET