১৫ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার, ৩১শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৮ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

শিরোনামঃ-




বরগুনার বেতাগীতে দুইটি শহীদ মিনার ভাংচুর

মোহাম্মদ ইমন মিয়া, বাঙ্গরা,কুমিল্লা করেসপন্ডেন্ট।

আপডেট টাইম : ফেব্রুয়ারি ২১ ২০১৮, ১৮:৫৬ | 668 বার পঠিত | প্রিন্ট / ইপেপার প্রিন্ট / ইপেপার

বরগুনা প্রতিনিধি ঃ

বেতাগী উপজেলার সরিষামুড়ী ইউনিয়নের ১১৭ নং উত্তর সরিষামুড়ী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও সালেহা মোসলেম গণ গ্রন্থাগার প্রতিষ্ঠানে অমর একুশে ফেব্রুয়ারী ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষ্যে শহীদ মিনার করা হয়। গত ২০ শে ফেব্রুয়ারী গভীর রাত্রে শহীদ মিনার দুইটি ভেঙ্গে ফেলা হয়। সরেজমিনে গিয়ে জানা যায় অত্র বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোসাঃ মাকসুদা বেগম বিষয়টি কর্তৃপক্ষের কাছে জানিয়ে বেতাগী উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর এক লিখিত অভিযোগ দাখিল করে ও সালেহা মোসলেম গণ গ্রন্থাগার প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা মোঃ আবু জাফর আব্দুল্লাহ দৈনিক ভোরের দর্পন-কে বলেন আমের উদ্দিন হাফিজিয়া মাদ্রাসার সুপার মহিবুল্লাহ ও মামুন অর রশিদ মাদ্রাসা কমিটির সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে রাতে গোপন বৈঠকের মাধ্যমে মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের দ্বারা শহীদ মিনার দুইটি ভেঙ্গে ফেলে। যার প্রমান অত্র মাদ্রাসার এক শিক্ষার্থী মোঃ মারুফ। ঐ গোপন আলাপ কালে মারুফ উপস্থিত ছিল। মাদ্রাসার শিক্ষার্থী মারুফ বলে শহীদ মিনার ভেঙ্গে ফেলার মিটিং হয়। আমাকেও বলেছিলো, আমি যাইনি। হুজুরের কথায় শহীদ মিনার দুইটি ভেঙ্গে ফেলা হয়। এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষীকা অমিতা রানী, হেলেনা আক্তার বলেন গত বছরেও আমাদের বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার ভেঙ্গেছে এ বছরও আমরা কষ্ট করে একুশে ফেব্রুয়ারী পালিত করেছি। শহীদ মিনারটি ভেঙ্গেছে আমাদের স্কুল সংলগ্ন একটি হাফিজি মাদ্রাসা তারা বিভিন্ন সময় আমাদের ষড়যন্ত্র করত। আমাদের ধারনা উক্ত মাদ্রাসার ছেলেরা শহীদ মিনার ভেঙ্গেছে। অত্র বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী বলেছে আমরা শহীদ মিনারে সকল ভাষা শহীদদের প্রতি সশ্রদ্ধ সালাম ও বিন¤্র শ্রদ্ধাঞ্জলী দিতে পারেনি। আমাদের শহীদ মিনার যারা ভেঙ্গেছে তাদের বিচার চাই। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক স্থানীয়রা বলেন মাদ্রাসার হুজুরেরা একুশে ফেব্রুয়ারী পালন করে নি অথচ তারা বলছে এটা পালন করা বেদায়েতী। বিষয়টি জানার জন্য আমের উদ্দিন হাফিজি মাদ্রাসায় গিয়া দেখা যায় মাদ্রাসায় জাতীয় পতাকা উত্তলোন করা হয়নি ও একুশে ফেব্রুয়ারী পালিত হয় নি অথচ তাদের বিরুদ্ধে রয়েছে অন্য প্রতিষ্ঠানের শহীদ মিনার ভাঙ্গার অভিযোগ। মাদ্রাসার সুপার মহিবুল্লাহ মুঠো ফোনে সাংবাদিকদের কাছে ভুল স্বীকার করে বলেন কাজ করতে গেলে ভুল হতেই পারে। তবে শহীদ মিনার ভাঙ্গার ব্যাপরটা আমার জানা নেই। প্রমানিত হলে বিচার মাথা পেতে নিব। এ বিষয় বেতাগী উপজেলা নির্বাহী অফিসার বলেন অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত করে ব্যবস্তা নেওয়া হবে।

Please follow and like us:

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৬০১৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com নিউজ রুম।

Email-Cvnayaalo@gmail.com সিভি জমা।

 

 

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET