১৯শে এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার, ৬ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ৬ই রমজান, ১৪৪২ হিজরি

শিরোনামঃ-

লিবিয়ায় নতুন সমীকরণ : হাফতার নিয়ন্ত্রিত বেনগাজিতে অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্ট

নয়া আলো অনলাইন ডেস্ক।

আপডেট টাইম : ফেব্রুয়ারি ১৩ ২০২১, ২১:২৯ | 658 বার পঠিত

অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ ইউনুস মানফি বিভক্ত লিবিয়ার পূর্বাঞ্চলের গোত্রপ্রধান ও অন্য নেতাদের সাথে সাক্ষাত ও আলোচনা করেছেন। ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিতব্য জাতীয় নির্বাচনে সকলের অংশগ্রহণ নিশ্চিতে জেনারেল খলিফা হাফতারের নিয়ন্ত্রিত বেনগাজিতে পূর্বাঞ্চলের বিভিন্ন পক্ষের সাথে আলোচনা করছেন তিনি।

এর আগে বৃহস্পতিবার এথেন্স থেকে বেনগাজিতে পৌঁছেন লিবিয়ার অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট।

জাতিসঙ্ঘের তত্ত্বাবধানে সুইজারল্যান্ডে লিবিয়ার সংঘাতরত বিভিন্ন পক্ষের মধ্যে দীর্ঘ আলোচনার পর গত ৫ ফেব্রুয়ারি দেশটির অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট হিসেবে কূটনীতিক মোহাম্মদ ইউনুস মানফি ও প্রধানমন্ত্রী হিসেবে প্রভাবশালী লিবীয় ব্যবসায়ী আবদুল হামিদ মোহাম্মদ দাবিবাহকে নির্বাচিত করা হয়। অন্তর্বর্তীকালীন এই সরকার বছরের শেষে ২৪ ডিসেম্বর সাধারণ নির্বাচনের মাধ্যমে গৃহযুদ্ধ-পরবর্তী গণতান্ত্রিক সরকার গঠনে সাহায্য করবে।

বেনগাজিতে পৌঁছার আগে মানফি এক টুইট বার্তায় বলেন, ‘আমাদের লক্ষ্য একতা ও সত্যিকার মীমাংসা অর্জন করা এবং দুর্ভোগের সমাপ্তিতে সকলের সাথে সহযোগিতা করা।’

বৃহস্পতিবার পৌঁছার অল্প কিছুসময় পরেই বেনগাজির ২৭ কিলোমিটার (১৭ মাইল) পূর্বে রাজমা গ্রামে পূর্বাঞ্চলীয় যুদ্ধবাজ নেতা জেনারেল খলিফা হাফতারের সাথে তার বাহিনীর সদর দফতরে সাক্ষাত করেন।

ইউনুস মানফি ও খলিফা হাফতারের মধ্যে এই বৈঠকে হাফতার অন্তর্বর্তীকালীন নতুন সরকারের প্রতি তার সমর্থন পুনর্ব্যক্ত করেন এবং লিবিয়ায় ‘শান্তিপূর্ণ ও গণতান্ত্রিকভাবে ক্ষমতার হস্তান্তরে’ সহায়তার প্রতিশ্রুতি দেন।

২০১১ সালে আরব বসন্তের পরিপ্রেক্ষিতে লিবিয়ায় সাধারণ মানুষ চার দশক দেশটি শাসন করা একনায়ক মুয়াম্মার গাদ্দাফির পদত্যাগের দাবিতে বিক্ষোভ শুরু করে। গাদ্দাফি সামরিক পন্থায় বিক্ষোভকারীদের দমন করতে চাইলে দেশটিতে গৃহযুদ্ধ ছড়িয়ে পড়ে। গৃহযুদ্ধের এক পর্যায়ে বিদ্রোহীদের হাতে গাদ্দাফি নিহত হলেও দেশটিতে বিভিন্ন পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ অব্যাহত থাকে। বিবাদমান পক্ষগুলোর মধ্যে সংঘর্ষ থেকে নতুন করে দ্বিতীয় পর্যায়ে ২০১৪ থেকে শুরু হওয়া গৃহযুদ্ধে দেশটি ত্রিপোলিকেন্দ্রীক পশ্চিম ও তবরুককেন্দ্রীক পূর্বাঞ্চলীয় সরকারের মধ্যে বিভক্ত হয়ে পড়ে।

২০১৯ সালের এপ্রিলে পূর্বাঞ্চলীয় যুদ্ধবাজ নেতা খলিফা হাফতার জাতিসঙ্ঘ সমর্থিত পশ্চিমাঞ্চলের সরকারের কাছ থেকে রাজধানী ত্রিপোলির নিয়ন্ত্রণ নিতে হামলা চালায়। দীর্ঘ ১৪ মাস সংঘর্ষের পর তার এই হামলা ব্যর্থ হয়।

গত বছরের অক্টোবরে জাতিসঙ্ঘ উভয়পক্ষকে যুদ্ধবিরতিতে সম্মত করে এবং দেশটির সংকট সমাধানে বিবাদমান পক্ষগুলোর মধ্যে রাজনৈতিক সংলাপের সূচনা করে।

সূত্র : আলজাজিরা

Please follow and like us:

পাঠক গনন যন্ত্র

  • 4492579আজকের পাঠক সংখ্যা::
  • 1এখন আমাদের সাথে আছেন::

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৮৮০৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com নিউজ রুম।

Email-Cvnayaalo@gmail.com সিভি জমা।

 

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET