১৫ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, সোমবার, ৩১শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৮ই মহর্‌রম, ১৪৪৬ হিজরি

শিরোনামঃ-
  • হোম
  • সকল সংবাদ
  • সোনাগাজীর দৌলতকান্দিতে পোল্ট্রি বর্জ্যে পরিবেশ দূষণ,সহস্রাধিক পরিবার স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে




সোনাগাজীর দৌলতকান্দিতে পোল্ট্রি বর্জ্যে পরিবেশ দূষণ,সহস্রাধিক পরিবার স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে

মোহাম্মদ ইমন মিয়া, বাঙ্গরা,কুমিল্লা করেসপন্ডেন্ট।

আপডেট টাইম : মার্চ ১৬ ২০১৮, ১৮:১০ | 692 বার পঠিত | প্রিন্ট / ইপেপার প্রিন্ট / ইপেপার

সোনাগাজী প্রতিনিধি: 
সোনাগাজীর মতিগঞ্জ ইউনিয়নের দৌলতকান্দি গ্রামের আজাদের পল্ট্রি ফার্মে বর্জ্যে পরিবেশ দূষিত হয়ে সহস্রাধীক পরিবার স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে রয়েছে। ছড়িয়ে পড়ছে বিভিন্ন রোগ-ব্যাধি।
পোল্ট্রি ফার্মের মুরগির স্তুপ বিষ্ঠার (মল), মরা মুরগী, পঁচা ডিমের দুর্গন্ধে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে গ্রামবাসী।

সরেজমিনে দেখা যায়, দৌলতকান্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রয় ৫হাত দরত্ত্বে গড়ে উঠেছে ২টি পোল্ট্রি ফার্ম। সামন্য আরেকটু দুরত্ত্বে গড়ে উঠেছে একই মালিকের আরো দুটি পোল্ট্র ফার্ম। এসব পোল্ট্রি ফার্মের সকল মরা মুরগী ও ফার্মের আবর্জনা ফেলা হয় পাশের ডোবাগুলোতে। এসব ডোবাগুলোতে মরা মুরগী পঁচে তৈরি হয় বিষাক্ত গ্যাস ও দুর্গন্ধ। যার ফলে এলাকার মানুষজন ও স্কুলের কোমলমতি শিক্ষার্থীরদের পড়লেখা এবং স্বাস্থ্য মরাত্মক ঝুঁকিতে। এ দুর্গন্ধে মানুষজন অতিষ্ট হয়ে বিক্ষুব্দ হয়ে উঠে।

এলাকাবাসী জানায়,  মুরগীর ফার্ম নিঃসন্দেহে একটি শিল্প কিন্তু এখন এখানকার এ ফার্ম মানুষের মরন ফাঁদ হয়ে দাড়িয়েছে। আমরা সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করছি।
এ ব্যাপারে স্থানীয় আরেক পোল্ট্রি ব্যবসায়ী জানান, প্রকৃত ব্যবসায়ীরা কখনও জনগনের ক্ষতি হয় এমন কাজ করতে পারেনা। মরা মুরগী কখনও উন্মুক্ত জায়গা অথবা ডোবায় ফেলা উচিত নয়। এটি মাটির নীচে ফুঁতে রাখারই নিয়ম। এটি মানুষের যেমন ক্ষতি হয় তেমনী তার প্রতিষ্ঠানেরও ক্ষতি। সুতারাং স্থানীয় প্রশাসন কঠোর নজরদারিতে রাখা উচিত।

পোল্ট্রি ফার্মের মালিক বিপুল ও আজাদ জানান, আমরা যাকে দায়িত্ত্ব দিয়েছি সে সঠিকভাবে কাজটি করেনি। আমরা এ ময়লা আবর্জনা সরানোর চেষ্টা করছি।
স্কুলের এত কাছে ফার্ম তৈরির বিষয়ে বলেন এতে তেমন কোন ক্ষতি নেই। তাছাড়া কোন গন্ধ আমাদের নাকে লাগছেনা।

এ বিষয়ে সোনাগাজী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মিনহাজুর রহমান জানান, আমি বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় চেয়ারম্যানের সাথে কথা বলে বিধি সম্মত ব্যাবস্থা গ্রহণ করব।

একজন সিনিয়র আইনজীবি বলেন এ ধরনের কর্মকান্ড  একটি ফৌজদারী অপরাদ যা পাবলিক নুইসেন্স এর আওতায় বলে গন্য করা হয়। সুতারাং এ কর্মকান্ডের জন্য তাদের আইনের আওতায় এনে প্রতিকারের ব্যবস্থা করতে হবে।

Please follow and like us:

সর্বশেষ খবর

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী, সম্পাদক- আশরাফুল ইসলাম জয়,  উপদেষ্টা সম্পাদক- নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদক - ০১৫২১৩৬৯৭২৭,০১৬০১৯২০৭১৩

Email-dailynayaalo@gmail.com নিউজ রুম।

Email-Cvnayaalo@gmail.com সিভি জমা।

 

 

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET